এটা মুহিতের পকেট কমিটি : কমিটি বয়কট করে যুবলীগের ঝাড়ু মিছিল

0
52

সিলেটের সংবাদ ডট কম: সংগঠন বিরোধী কার্যকলাপ, গ্রুপিং কোন্দল আর আধিপত্যবিস্তারের কারনে প্রায় ১২ বছর কমিটি ঘোষনা বন্ধের পর একতরফা ঘোষিত যুবলীগের কমিটি নিয়ে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে যুবলীগে। সদ্য কমিটিতে ত্যাগীরা সুযোগ না পেয়ে যারা সরকারের সুযোগ কাজে লাগিয়ে ছিনতাই, জায়গা দখল, মাদকব্যবসা, খুন খারাবী করে নিজেদের আখের গুছিয়েছে তাদের কমিটিতে স্হান দেয়া হয়েছে বলে যুবলীগ নেতারা অভিযোগ করেছেন। যুবলীগ নেতারা যুবলীগের কমিটিকে আবুল মাল আবদুল মুহিতের ‘পকেট কমিটি’ ঘোষনা দিয়ে মহানগর যুবলীগের ত্যাগী নেতাকর্মীরা নগরীতে ঝাড়ু মিছিল বের করেছে। নেতারা অবিলম্বে পরীক্ষীত দের নিয়ে নতুন কমিটি গঠনের আহবান জানিয়েছেন। সোমবার বিকেলে সিলেট জেলা রেজিষ্ট্রারী মাঠ থেকে ঝাড়–মিছিলটি শুরু হয়। এটি জিন্দাবাজার সড়ক হয়ে চৌহাট্টা পয়েন্টে গিয়ে শেষ হয়। এতে নেতৃত্ব দেন যুবলীগের সাবেক সভাপতি সুদীপ দে। মিছিলে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিতের বিরুদ্ধে শ্লোগান দেয়া হয় ও মিছিল পরবর্তী সমাবেশ থেকে যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. আহমদ আল কবীরকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়। সদ্য কমিটিতে সুযোগ না পাওয়া মহানগর যুবলীগ নেতা সুদিপ দেব জানান, এই কমিটি অর্থমন্ত্রীর কার্যালয়ে গঠিত তার নিজস্ব কমিটি। এর সাথে সিলেটের ত্যাগী যুবলীগ নেতাদের কোন সম্পর্ক নেই। এটা অর্থমন্ত্রীর পকেট কমিটি। তিনি অভিযোগ করে বলেন হবিগঞ্জের মাসুম বিল্লাহ কে রাখা হয়েছে সিলেট মহানগর যুবলীগে! সুদিব দেব আরও জানান সম্মেলনের মাধ্যমে কমিটি গঠন হলে আমাদের কোন আপত্তি নেই। ত্যাগী নেতাকর্মীদের বাদ দিয়ে গঠিত এই কমিট মানবে না সিলেটের আপামর যুবলীগ নেতাকর্মীরা। এই কমিটি বাতিল হওয়া না পর্যন্ত আন্দোলন চলবে বলে তিনি জানান। এছাড়া মহানগর যুবলীগের সাবেক সিনিয় সদস্য পিংকু আব্দুর রহমান বলেন, যে কমিটি গঠিত হয়েছে তার সাথে মাঠে থাকা ত্যাগী ও পরিক্ষিত যুবলীগ নেতাদের কোন সম্পর্ক নেই। এই কমিটিতে সুবাধীভোগীরা স্থান পেয়েছে বলে তিনি মনে করেন। এদেরকে যুবলীগের মিছিল মিটিং এ দেখা যায়না বলে তিনি অভিযোগ করেন। তিনি আরো বলেন, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত তার ভাগ্নি জামাই যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আহমদ আল কবিরকে নিয়ে পকেট কমিটি গঠন করেছেন। ত্যাগী নেতাকর্মীদের বাদ দিয়ে অর্থমন্ত্রীর পকেট কমিটি যুবলীগ নেতাকর্মীরা প্রত্যাখান করেছে। অবিলম্বে সম্মেলনের মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠনের উদ্যোগ না নিলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। উল্লেখ্য, প্রায় একযুগ পর সিলেট মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। রোববার বিকেলে যুবলীগের সভাপতি ওমর ফারুক চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ ৬১ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করেন। এর আগে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের কাছে এই কমিটির লিস্ট জমা দেওয়া হয়। পরে অর্থমন্ত্রীর অফিসে বসেই কমিটি ঘোষণা করা হয়। সমাবেশে বক্তারা বলেন-ড. আহমদ আল কবির চিহিৃত দালাল। তিনি কখনো আওয়ামী পরিবারের সদস্য ছিলেন না। তাকে দিয়ে যুবলীগ বা আওয়ামী লীগের কোন লাভ হবে না। তিনি সিলেটে আওয়ামী যুবলীগকে ধ্বংস করার মিশনে নেমেছেন। সমাবেশে অন্যানের মধ্যে বক্তব্য রাখেন-মহানগর যুবলীগের নব গঠিত আহবায়ক কমিটির সদস্য ও সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এম এ হান্নান, সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক বিধান পাল, সাবেক আইন সম্পাদক ছাদিকুর রহমান, সাবেক সাংস্কৃতিক সম্পাদক গৌতম চক্রবর্তী, যুবলীগ নেতা আব্দুর রহমান, পিযুষ কান্তি দে, শাহনেওয়াজ আলম পলাশ, আনোয়ারুল আলম, মিহির দেব, টিপাশ রায়, আব্দুল জলিল লেবু, তফাজ্জল হোসেন, রেজাউর রহমান সেলিম, শেখ আক্তার আহমদ, বাবলা হোসেন, বিশ্বজিৎ কর, বিশ্বজিৎ দাস, নজরুল ইসলাম নজু, মিটু মোহন দে, বাবুল হোসেন, জয় দেব, অনিক দাস, পারভেজ আহমদ, রাহী আহমদ, সুমন আহমদ প্রমুখ। এদিকে টিলাগড়ের আজাদ গ্রুপের সন্ত্রাসী মেজরটিলার এম এ হান্নান নিজেকে বর্তমান কমিটির সদস্য ঘোষনা দিয়ে ফুলের তোড়া দিয়ে ছবি উটিয়ে বিভিন্ন্ ফেসবুকে সিনিয়র নেতাসহ জননেত্রী শেখ হাসিনাকে প্রাণঢালা অভিনন্দন জানাচ্ছেন। এ ব্যাপারে ছাত্রলীগের বিলুপ্ত কমিটির সহ-সভাপতি আজির উদ্দিন আজির জানান, এম এ হান্নান নাম কমিটিতে এসছে তবে এ হান্নান নব গঠিত আহবায়ক কমিটির সদস্য ও সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এম এ হান্নান। মেজরটিলার কোন হান্নান সদস্য বলে আমাদের জানা নেই।

(Visited 2 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here