ঈদ বাজারে পছন্দের শীর্ষে ভারতীয় পোশাক

0
107

সিলেটের সংবাদ ডট কম ডেস্ক: ঈদুল ফিতর উপলক্ষে সিলেট নগরীর বিভিন্ন মার্কেট-বিপণিতে কেনাকাটার ধুম পড়েছে। জমে উঠেছে ঈদের বাজার। মার্কেটগুলোতে ভারতীয় পোশাক বেশি পাওয়া যাচ্ছে। ফলে দেশীয় পোশাক বিক্রি হচ্ছে কম। চোরাকারবারিরা প্রশাসনের কিছু অসাধু কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে সীমান্ত এলাকা দিয়ে অবাধে নিয়ে আসছে ভারতীয় পণ্য। ক্রেতাদের দৃষ্টিনন্দন ও আকর্ষণীয় করে তুলতে বাহারি সাজে সাজানো হয়েছে মার্কেটগুলো। বিক্রি বাড়াতে নানা জিনিসে দেওয়া হচ্ছে মূল্যহ্রাস ও কুপন। ক্রেতাদের মতে, মার্কেটগুলোতে পছন্দের পোশাক পাওয়া গেলেও দাম অনেক বেশি। এদিকে, সাধ্যমত দাম দিয়ে পোশাক কিনতে ছিন্নমূল ও নিম্ন আয়ের মানুষ ছুটছেন হকার্স মার্কেটগুলোতে। বিপণিগুলোতে এসেছে বয়সভিত্তিক নারী ও পুরুষের জন্য আকর্ষণীয় থ্রি-পিস, পাঞ্জাবি, ফতুয়া, লেহেঙ্গা, লুঙ্গি, টি-শার্ট, জিন্স প্যান্ট, শেরোয়ানি দেশি-বিদেশি শাড়ি। পোশাকগুলোর নামের ক্ষেত্রেও আনা হয়েছে বৈচিত্র্য। যেমন- শাড়ির মধ্যে রয়েছে জুট কাতান, ক্যাটরিনা, জামদানি সিল্ক, দেশীয় তাঁত, বাংলাদেশি তাঁত, তিশুমিতার, জর্জেট ইত্যাদি। তরুণীদের মধ্যে এবার সবচেয়ে আকর্ষণীয় হচ্ছে ভারতীয় সিরিয়ালের থ্রি-পিস পাখি। এ ছাড়াও বাজারে রয়েছে সোনাক্ষি, মহিনি, খাগড়া, আশিকী, সুট আউটের মতো থ্রি-পিস। ছেলেদের জন্য বাজারে জিন্স প্যান্টের মধ্যে টিসু, বেক্ষকবেরী, ইটালিয়ান, ইন্ডিয়ান, ডিজিএল, ডেজেল, আরমানি, কিউজি বিক্রি হচ্ছে। পাঞ্জাবির মধ্যে রয়েছে লিমিট, তুষা, এগ্রী, আড়ং, চাঁদ, এন্ডিকটন, এন্ডি সিল্ক ইত্যাদি। রেডিমেট দোকানগুলোতে ছোটদের জন্যে রয়েছে বাহারি ডিজাইন ও কার্টুনের নামকরণে নানা পোশাক। তবে কাপড় ক্রয়ের ক্ষেত্রে সুতি কাপড় ও গজ কাপড় অন্য বছরের তুলনায় বেশি বিক্রি হচ্ছে বলে বিক্রেতারা জানান। এদিকে, কাপড় তৈরির কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন পোশাক কারিগররা।সিলেটের সংবাদ ডট কম ডেস্ক: ঈদুল ফিতর উপলক্ষে সিলেট নগরীর বিভিন্ন মার্কেট-বিপণিতে কেনাকাটার ধুম পড়েছে। জমে উঠেছে ঈদের বাজার। মার্কেটগুলোতে ভারতীয় পোশাক বেশি পাওয়া যাচ্ছে। ফলে দেশীয় পোশাক বিক্রি হচ্ছে কম। চোরাকারবারিরা প্রশাসনের কিছু অসাধু কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে সীমান্ত এলাকা দিয়ে অবাধে নিয়ে আসছে ভারতীয় পণ্য। ক্রেতাদের দৃষ্টিনন্দন ও আকর্ষণীয় করে তুলতে বাহারি সাজে সাজানো হয়েছে মার্কেটগুলো। বিক্রি বাড়াতে নানা জিনিসে দেওয়া হচ্ছে মূল্যহ্রাস ও কুপন। ক্রেতাদের মতে, মার্কেটগুলোতে পছন্দের পোশাক পাওয়া গেলেও দাম অনেক বেশি। এদিকে, সাধ্যমত দাম দিয়ে পোশাক কিনতে ছিন্নমূল ও নিম্ন আয়ের মানুষ ছুটছেন হকার্স মার্কেটগুলোতে। বিপণিগুলোতে এসেছে বয়সভিত্তিক নারী ও পুরুষের জন্য আকর্ষণীয় থ্রি-পিস, পাঞ্জাবি, ফতুয়া, লেহেঙ্গা, লুঙ্গি, টি-শার্ট, জিন্স প্যান্ট, শেরোয়ানি দেশি-বিদেশি শাড়ি। পোশাকগুলোর নামের ক্ষেত্রেও আনা হয়েছে বৈচিত্র্য। যেমন- শাড়ির মধ্যে রয়েছে জুট কাতান, ক্যাটরিনা, জামদানি সিল্ক, দেশীয় তাঁত, বাংলাদেশি তাঁত, তিশুমিতার, জর্জেট ইত্যাদি। তরুণীদের মধ্যে এবার সবচেয়ে আকর্ষণীয় হচ্ছে ভারতীয় সিরিয়ালের থ্রি-পিস পাখি। এ ছাড়াও বাজারে রয়েছে সোনাক্ষি, মহিনি, খাগড়া, আশিকী, সুট আউটের মতো থ্রি-পিস। ছেলেদের জন্য বাজারে জিন্স প্যান্টের মধ্যে টিসু, বেক্ষকবেরী, ইটালিয়ান, ইন্ডিয়ান, ডিজিএল, ডেজেল, আরমানি, কিউজি বিক্রি হচ্ছে। পাঞ্জাবির মধ্যে রয়েছে লিমিট, তুষা, এগ্রী, আড়ং, চাঁদ, এন্ডিকটন, এন্ডি সিল্ক ইত্যাদি। রেডিমেট দোকানগুলোতে ছোটদের জন্যে রয়েছে বাহারি ডিজাইন ও কার্টুনের নামকরণে নানা পোশাক। তবে কাপড় ক্রয়ের ক্ষেত্রে সুতি কাপড় ও গজ কাপড় অন্য বছরের তুলনায় বেশি বিক্রি হচ্ছে বলে বিক্রেতারা জানান। এদিকে, কাপড় তৈরির কাজে ব্যস্ত সময় পার করছেন পোশাক কারিগররা।

(Visited 4 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here