সিলেটে কাপড় ও জুতার দোকানে দুর্ধর্ষ চুরি

0
105

সিলেটের সংবাদ ডট কম: সিলেটের দক্ষিণ সুরমায় কাপড় ও জুতার দোকানে দুর্ধর্ষ চুরি সংগঠিত হয়েছে। বুধবার ভোর রাতে জালালপুর বাজারস্থ উস্কান্দর আলীর বিল্ডিংয়ে সামী এন্ড রিহা সু ষ্টোর ও মদিনা ফ্যাশন কাপড়ের দোকানে এ চুরির ঘটনা ঘটে। চোররা পাশাপাশি দুই দোকান হওয়ায় দোকানগুলোর ঘরের টিনের চাল খোলে প্রবেশ করে ক্যাশ বাক্স ভেঙ্গে নগদ টাকা, বিভিন্ন ধরনের জুতা ও কাপড়সহ  ১ লাখ ৫২ হাজার টাকার মালামাল চুরি করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় পুলিশ সন্দেহজনক আসামী হিসেবে বাজারের চা দোকান কর্মচারী মোঃ শাহজাহান মিয়া (২৮)কে আটক করেছে। আটককৃত শাহজাহান মোগলাবাজার থানার খতিরা গ্রামের বাবুল মিয়ার পুত্র। দুর্ধর্ষ এ চুরির ঘটনায় সামী এন্ড রিহা সু ষ্টোরের মালিক মোঃ আব্দুল বারি বাদি হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামী করে মোগলাবাজার থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। নং-১৩। মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা গেছে, সারাদিন ব্যবসা করে গত মঙ্গলবার রাত পোনে ৩ টার দিকে  সামী এন্ড রিহা সু ষ্টোর মালিক মোঃ আব্দুল বারি ও পাশের দোকানদার মদিনা ফ্যাশনের মালিক ও জালালপুর বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সেক্রেটারী আব্দুল হালিম এক সাথে যায় যায় দোকানে তালা দিয়ে যার যার বাড়ি চলে যান। বুধবার সকাল ৯ টার দিকে তারা দোকান খুলে দেখতে পান দু’টি দোকানের মালামাল তছনছ ও ক্যাশ বাক্স ভাঙ্গা। ভোররাতে চোররা দু’দোকানের ঘরের চাল খোলে দোকানে প্রবেশ করে নগদ টাকাসহ ১ লাখ ৫২ হাজার টাকার মালামাল চুরি করে নিয়ে গেছে। তবে চুরি হওয়া দু’দোকানের মালিকদের সন্দেহ বাজারের নৈশ প্রহরীদের যোগসাজসে চোররা উক্ত মালামাল চুরি করেছে। এক পর্যায়ে নৈশ প্রহরীরা জানায়, বাজারের চা দোকান কর্মচারী শাহজাহান ও জমশেদসহ একটি সংঘবদ্ধ চোর চক্ররা উক্ত চুরির ঘটনাটি সংগঠিত হওয়ার আশপাশ এলাকায় ঘুরাফেরা করছিল। তারাই এ চুরির ঘটনাটি ঘটিয়েছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মোগলাবাজার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ আজহারুল ইসলাম জানান, আটককৃত শাহজাহান মিয়া সংঘবদ্ধ চোররা উক্ত দোকানগুলোর টিন খোলে ঘরে প্রবেশ করে ১ লাখ ৫২ হাজার টাকার মালামাল চুরি করে নিয়ে গেছে তা যথেষ্ট প্রমান পাওয়া যাচ্ছে। আসামী শাহজাহান ২০দিন পূর্বে জালালপুর বাজারের এনাম মিয়ার চার দোকানে চাকুরী নেয়। তাই শাহজাহানকে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করলে ঘটনার প্রকৃত রহস্য উদঘাটন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

(Visited 3 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here