সামাজিক সংস্কার ভেঙ্গে দিতে রাস্তায় কায়রোর এক মেয়ে

0
187

সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: মিসরে বিয়ের পোশাক পরিহিত একজন অবিবাহিত নারীর রাস্তাঘাটে ঘুরে বেড়ানোর বিষয়ে সামাজিক যেসব সংস্কার আছে তা ভেঙ্গে দিতে চেয়েছেন কায়রোর এক মেয়ে। বিয়ের পোশাক পরে রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় হেঁটে বেড়ানো এই মেয়েটির নাম সামা হামদি। তার বয়স ২৭। তিনি বলছেন, অবিবাহিত কোনো নারীর প্রতি সমাজের যেসব নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি আছে এর মধ্য দিয়ে সেগুলোর ওপরেই তিনি আলোকপাত করতে চেয়েছেন। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় মাটিতে ছুঁয়ে গেছে এ রকম লম্বা শাদা একটি বিয়ের পোশাক পরে এক বছর সময় ধরে তার ছবি তোলা হয়েছে। তার মুখের কিছুটা অংশও পর্দায় ঢাকা ছিলো। সামা হামদি একজন ইন্টেরিয়ার ডিজাইনার, পারফরমেন্স আর্টের ওপর মাস্টার্স করছেন, বলেছেন, কখন তিনি বিয়ে করবেন সেটা নিয়ে তার পরিবারের সঙ্গে বহুবার বিতন্ডা হয়েছে। আপনি কতোটা সফল সেটা কোনো বিষয় না, বিষয় হলো আপনি বিবাহিত কিনা। মনে হয় সেটাই সবচে গুরুত্বপূর্ণ। যেনো এর জন্যেই মেয়েদের জন্ম হয়েছে। তিনি বলেন, সমাজ দেখতে চায় আপনি বিয়ে করেছেন কীনা এবং আপনার সংসার আছে কীনা। এইসব ছবি তার ফেসবুক পাতায় পোস্ট করার পর তাতে বহু মানুষ মন্তব্য করেছেন। মোস্তাফা শালাবি নামে একজন লিখেছেন, ব্র্যাভো। খুব বাজে একটা সমাজ। কিন্তু আরেকজন মশিরা ওরতিজ লিখেছেন, যে ব্যক্তির এখন কোনো সন্তান নেই, এখন তরুণ ঠিক আছে, কিন্তু বার্ধক্যে পৌঁছালে তাকে দেখার আর কেউ থাকবে না। বিয়ের পোশাক পরে তার ঘুরে বেড়ানোর একটি ভিডিও সমপ্রতি একটি পুরষ্কারও জিতে নিয়েছে। তবে এসব ছবি ও ভিডিও বাড়িতে তার পরিবারের লোকদের মন জয় করতে পারেনি। কারণ তার মা এখনো মনে করেন যে একজন চিরকুমারী। মিসরে বহু নারী কুড়ির পরেও অবিবাহিত থাকেন। ২০১১ সালের সরকারি এক পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, প্রায় ৯০ লাখ মানুষ বিয়ে না করেই ৩৩ বছরে পৌঁছেছে এবং তাদের অর্ধেকই হচ্ছেন নারী।

(Visited 4 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here