সুনামগঞ্জে বিদ্যুৎতের দাবীতে সড়ক অবরোধ

0
162

52সিলেটের সংবাদ ডটকম: আকাশে মেঘ জমলেই বৃষ্টি নামতে না নামতেই চলে যায় বিদ্যুৎ। আর ঝড়-বৃষ্টি হলে তো কয়েকদিন দেখা মেলেনি বিদ্যুতের। আর বিদ্যুৎ থাকলেও দিনে যাওয়ার মধ্যে আসে কয়বার তা হিসেব করা সহজ নয়। এমন ভোগান্তির শিকার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার নোয়াখালীবাজার, জামলাবাদ, বগলারখাড়া, ইনামনগর সহ তৎপার্শ্ববর্তীর এলাকার হাজার হাজার সাধারন বিদ্যুৎ গ্রাহকদের। অবশেষে আস্তায় নামলেন এলাকাবাসী।

দিরাই-সিলেট সড়ক অবরোধ করে রাস্তাায় টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেন তারা। এসময় ২দিক থেকে প্রায় ২শতাধিক গাড়ী আটকে যায়। দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানা ও ছাতক থানার পুলিশের মধ্যস্থতায় অবরোধ তুলেন বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। মঙ্গলবার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার নোয়াখালী বাজারে ভয়াবহ বিদ্যুৎ বিভ্রাটের প্রতিবাদে এ বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধের ঘটনা ঘটে।

ভোর ৫টা থেকে সকাল ১১টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ৬ ঘন্টার এ অবরোধের ফলে সিলেট থেকে আসা দিরাইগামী ও দিরাই থেকে আসা সিলেটগামী শতশত গাড়ী আটকে থাকে। অবশেষে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ ও ছাতক থানা পুলিশ কর্মকর্তাদের অনুরোধে ও বিদ্যুৎ বিভাগ কর্তৃপক্ষের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে সড়ক অবরোধ তুলে নেন এলাকাবাসী।

প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসীর সাথে আলাপকালে জানা যায়, নোয়াখালী বাজার-জামলাবাদ তৎপার্শ্ববর্তী এলাকাটি দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার অভ্যন্তরে হলেও বিদ্যুৎ বিপনন বিভাগ দিরাই ফিডারের অন্তভুক্ত রয়েছে। এ এলাকার বিদ্যুতের সমস্যার চিত্র পুরনো। নোয়াখালী বাজারে ছোট বড় প্রায় ২শতাধিক মিল-কারখানা রয়েছে। আর নোয়াখালী বাজারটি উপজেলার অন্যতম গুরুত্বপুর্ন একটি বাজার। এই বাজারে ৫শতাধিক ছোট-বড় দোকান রয়েছে।

এই এলাকা থেকে বিদ্যুৎ বিভাগ প্রতিমাসে ১০ থেকে ১৫ লক্ষ টাকার বিদ্যুৎ বিল আদায় করে থাকে। কিন্তু বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ ন্যুনতম গ্রাহক সুবিধা দিতে নারাজ। দিনে বিদ্যুত যায়না বরং মাঝে মাঝে আসে এমন অবস্থায় দিনাতিপাত করছিলেন এলাকাবসী। সর্বশেষ বিদ্যুতের এমন দুরাবস্থা ও লো ভল্টেজের কারনে অনেক ব্যাবসায়ী তাদের দোকানে অতিরিক্ত হিসেবে সৌরবিদ্যুত সংযোগ দিয়েছেন। কিন্তু বিদ্যুৎজনিত লোকসান গুনতে গুনতে ব্যাবসায়ী ও মিল কারখানার মালিকদের পিঠ দেয়ালে ঠেকে গেছে।

এমন অবস্থায় তারা আর বসে থাকতে পারছেন না বিধায় শেষ পর্যন্ত রাজপথ অবরোধের মত কর্মসুচী পালনে বাধ্য হয়েছেন। নোয়াখালী বাজারের বিশিষ্ট ব্যাবসায়ী নাদিয়া রেষ্টুরেন্টের সত্ত্বাধিকারী ও উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল বাছিত সুজন বলেন, বিদ্যুতের ভেল্কিবাজীতে এই এলাকার মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। দেশের কোথাও আমাদের মত বিদ্যুৎ সমস্যার সম্মুখীন কেউ হচ্ছে বলে আমার মনে হয়না।

এটাকে বিদ্যুৎ গ্রাহকদের দীর্ঘ দিনের ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ বলেও জানান তিনি। অবিলম্বে এই এলাকার বিদ্যুৎ সমস্যা সমাধানের জন্য কার্যকর উদ্যোগ গ্রহনের জন্য বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষে প্রতি আহ্বান জানান তিনি। তবে এই অবরোধ ও বিক্ষোভের পরপরই বিদ্যুৎ সংযোগ আসে এবং ভোল্টেজও বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানিয়েছেন নোয়াখালী বাজারের  আব্দুল কাদির মার্কেটের মালিক জামলাবাদ গ্রামের বাসিন্দা দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা আবুল হাসনাত ফয়ছল।

নোয়াখালী বাজারস্থ মেসার্স রহমান অটো রাইস মিলের পরিচালক ও উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা রয়েল আহমদ বলেন, বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধানের দাবীতে এলাকাবাসীর শান্তিপুর্ন অনুরোধকে বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ উপেক্ষা করায় আজ বিক্ষোভ ও সড়ক অবরোধের মত কঠোর কর্মসুচী পালিত হলো। আপাতত আমরা অবরোধ তুললেও আমাদের দাবী আদায়ে পুনরায় রাজপথে নামতে বাধ্য হবো।

এলাকার তরুন সমাজকর্মী ও ছাত্রনেতা রেজাউল বলেন, আমাদের এলাকার দীর্ঘদিনের বিদ্যুৎ সমস্যা সমাধানের জন্য আমরা বারবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও কর্তৃপক্ষ কোন উদ্যোগ গ্রহন না করায় জনতা আজ ফুসে উঠেছে। আজকের এই অবরোধ ভবিষ্যতের জন্য একটি সংকেত। তাই কর্তৃপক্ষকে বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধানের জন্য এখনই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে হবে।

অন্যথায় জনতার বিক্ষোভ আবারো যেকোন সময় ছড়িয়ে পড়তে পারে। অত্র এলাকার বিদ্যুৎ সমস্যা নিয়ে স্থানীয় গনিগঞ্জ ষোলগ্রাম উচ্চগ্রাম বিদ্যালয়ের প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষার্থী সুবর্না আক্তার জানান, আমাদের এখানে বিদ্যুৎ যায়না বরং মাঝে মাঝে আসে বলা যায়। পরীক্ষা চলছে বিদ্যুতের মিটি মিটি আলো দেখে সন্ধ্যার পর বই হাতে নিয়ে টেবিলে বসতেই বিদ্যুৎ হাওয়া হয়ে যায়। তারপর ৫ মিনিট পরপর বিদ্যুৎ যাওয়া আসার কারনে লেখাপড়ার চরম ব্যাঘাত ঘটছে।

এমতাবস্থায় বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষকে কোমলমতি শিক্ষার্থীদের অধ্যয়নের জন্য অন্তত রাতের বেলায় নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সংযোগের আহ্বান জানায় সুবর্না। বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী জানান, আমরা নিয়মিত বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করার পরও আমাদের প্রতি কর্তৃপক্ষের এমন নিষ্ঠুর আচরন কখনো কাম্য হতে পারেনা। অবিলম্বে তা সমাধানের জন্য কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি ও কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহনের দাবী জানান তারা। এ ব্যাপারে দিরাই থানার পিডিবি বিদ্যুৎ আবাসিক প্রকৌশলী আবুল কাসেম জানান প্রাকৃতিক দূর্যোগের কারণে এই সমস্যা হয়েছিল বর্তমানে এই সমস্যা সমাধান করা হয়েছে।

(Visited 9 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here