নিখোঁজ নেতাদের নাম ব্যবহার করে চলছে প্রতারনা!

0
227

0 (13)সিলেটের সংবাদ ডটকম: জেলে বন্ধি অথবা প্রবাসী নেতাদের নাম ব্যবহার করে প্রতারনার ঘটনা আমরা সকলেই জানি। কিন্তু নিখোঁজ নেতাদের নাম ব্যবহার করে প্রতারনা ব্যবসা কেউই শুনেনি। নিখোঁজ নেতাদের পরিবারে যখন নেমেছে শোকের ছায়া তখন প্রতারকদের পরিবারে দেখা দিয়েছে সুখের হাওয়া। তাই আজ আমরা এমনই কয়েকটি ঘটনা পাঠকদের সামনে তুলে ধরার চেষ্টা করছি। সিলেটে নিখোঁজ নেতাদের নাম ব্যবহার করে নিরবে চলছে প্রতারনা। দলীয় সমর্থক ও বিভিন্ন জনের কাছ থেকে বিভিন্ন ভাবে টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে এসব প্রতারক চক্র।

নিখোঁজ বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলীসহ একাধিক নিখোঁজ নেতার পরিচয় দিয়ে চালিয়ে যাচ্ছে তাদের প্রতারনা ব্যবসা। এর আগেও নিখোঁজ নেতাদের ফোন নাম্বার ব্যবহার করে গড়ে উঠেছিল একটি প্রতারক গ্রুপ। অত্যাধুনিক সফটওয়ার তৈরি করে নিখোঁজ ব্যক্তিদের মোবাইল নাম্বর সংগ্রহ করে চাঁদাবাজি ও প্রতারণা করে আসছিল এরা।

কিন্তু র‌্যাবের চোঁখকে ফাকি দিতে পারেনি। বৃহস্পতিবার ০৭ নভেম্বর ২০১৩ ইং তারিখে গ্রেফতার করা হয়েছিল ঐ গ্রুপের সদস্যদের। সুত্র:- নয়া দিগন্ত। তারপর আর কেউ প্রতারনার ফাঁদে পড়েননি। কিন্তু ঐ চক্রের সদস্যরা তাদের খোলস পাল্টিযে এবার নতুনভাবে প্রতারনা শুরু করেছে।

স্কুল-কলেজ, অফিস-আদালতসহ বিভিন্ন দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্টানে নিখোঁজ বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলীর আত্বীয়, ইলিয়াস আলীর গ্রুপের অমুক নেতা, তমুক কর্মী, দিনারের বন্ধু, সহকর্মী আরো অনেক পরিচয় দিয়ে দলীয় নেতা কর্মীদের কাছ থেকে সাহায্যের নাম ভাঙ্গিয়ে চালিয়ে যাচ্ছে নিরবে প্রতারনা ব্যবসা।

এসব প্রতারকদের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছেন না ফুটপাত ও স্বল্প আয়ের দোকানদাররাও। অপর দিকে নিখোঁজ নেতাদের নামের দোহাই দিয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্টানে গিয়ে এরা তদবীরের নামে চালিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে টাকা পয়সা। আর এদেরকে আড়াল থেকে সাহায্য করছেন বিএনপি থেকে সরকার দলে যোগ দেয়া গুটিকয়েক নেতৃবৃন্দ। কিন্তু এদের কাছে প্রতারিত হলেও ভয়ে কেউই মুখ খলতে রাজি নন। 0 (20)নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সিলেট জিন্দাবাজারের বিএনপি সমর্থিত এক ব্যবসায়ী জানান, গত কয়েকদিন আগে তার দোকানে এক যুবক আসেন। তিনি নিখোঁজ বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলীর আত্বীয় পরিচয় দিয়ে দোকান থেকে প্রায় ৩৫ হাজার টাকার কাপড় কিনেন। যাওয়ার সময় ঐ যুবক দোকানদারকে ১০ হাজার টাকা দিয়ে বাকী টাকা পরে দিবেন বলে জানান।

কিন্তু দীর্ঘদিন অতিবাহিত হলেও ঐ যুবক আর আসেননি। তখন তিনি বুঝতে পারেন প্রতারকের খপ্পড়ে পড়েছেন। অপর ঘটনাটি ঘটেছে সিলেট শাহজালাল উপশহরে।

(প্রানের ভয়ে) নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক পানের দোকানদার বলেন, এক যুবক নিখোঁজ ছাত্রদল নেতা ইফতেখার আহমদ দিনারের বন্ধু পরিচয় দিয়ে প্রায় ৩ শত টাকার সিগারেট বাকীতে নেন। কিন্তু ঐ যুবক দোকানদারের টাকা আর দেননি। বর্তমানে তাকে ঐ এলাকায় আর দেখা যাচ্ছেনা বলেও দোকানদার জানান। শুধু কি তাই।

বিএনপি সমর্থিত ব্যাক্তিদের চাকরি, টেন্ডার, নিয়োগ, মামলা থেকে নাম বাদ দেয়াসহ সব ধরনের কাজ করে দেয়ার কথা বলে সহজ সরল লোকদের এরা ঠকিয়ে যাচ্ছে। এবার এদের জালে আটকা পড়েছেন বালাগঞ্জ থানার ময়নাবাজার এলাকার সহজ সরল বিএনপি সমর্থিত (নাম প্রকাশ না করার শর্তে) এক যুবক।

তিনি জানান, জিন্দাবাজারের তথাকথিত এক ট্রেভেলসে পরিচয় হয় আরেক প্রতারক নিখোঁজ ইলিয়াস আলীর ভুয়া আত্বীয়র সাথে। তিনি ঐ যুবককে সিলেট জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে চাকরি পাইয়ে দিবেন বলে জানান। তবে এ ব্যাপারে তাকে গুনতে হবে ২ লক্ষ টাকা। সহজ সরল ঐ যুবক প্রতারক ব্যাক্তিকে তার আগামী দিনের পথের আলো ভেবে প্রথমে ২৫ হাজার টাকা হাতে তুলে দেন।

বাকি টাকা চাকরিতে ঢুকে দিবেন বলে জানান। কিন্তু দিন, মাস, বছর অতিবাহিত হলেও আজও তার চাকরির নিয়োগ পত্র তিনি পাননি। পাওনা টাকা খুজতে গেলে ইলিয়াস আলীর আত্বীয় পরিচয়দানকারি যুবক তাকে বলেন, তুমি আমাকে চিন। আমি চাইলে এ মুহুর্তে তোমাকে সাইজ করতে পারি। বেচারা আহম্মক নিজে রুজি করে পরিবারের সবার মাথায় মুকুট পরাতে এসে নিজেই টুপি!পরে চলে গেলেন। বাকি সংবাদ পড়ুন আগামীতে……………………………….

(Visited 11 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here