জগন্নাথপুরে দুই গ্রামবাসীর সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক আহত

0
132

011 (4)সিলেটের সংবাদ ডটকম: জগন্নাথপুর উপজেলার রানীগঞ্জ ইউনিয়নের বাঘময়না ও গন্ববপুর গ্রামের দু’পক্ষের মধ্যে পূর্ব বিরোধের জের ধরে শনিবার এক রক্তক্ষয়ী সংর্ঘষে অর্ধশতাধিক ব্যক্তি  আহত হয়েছেন। এর মধ্যে গুরুত্বর আহত অবস্থায় ৬ জনকে সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অপর আহতরা স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

পুলিশ ৯ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, উপজেলার রানীগঞ্জ ইউনিয়নের বাগময়না গ্রামের ছালেহ আহমদ ও গন্ধবপুর গ্রামের মাসুক মিয়ার পক্ষের লোকজনের সঙ্গে পারিবারিক বিরোধ চলছিল। শুক্রবার মাসুক মিয়ার ছোট ভাই দিলাল মিয়া সালেহ আহমদকে লাঞ্ছিত করে।

এ ঘটনার পর  বাদ জুম্মা সালেহ আহমদের ছোট ভাই জিয়াউর রহমানের সঙ্গে মাসুক মিয়ার কথা কাটাকাটি হয়। এরই জের ধরে শনিবার বেলা দেড়টার দিকে দুই গ্রামের লোকজন দেশীয় অস্ত্রসন্ত্রে সজ্জিত হয়ে গর্ন্ধবপুর মাদ্রাসার সামনের রাস্তায় সংর্ঘষে লিপ্ত হয়। প্রায় দুই ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে উভয় পক্ষে ২৫ জন আহত হয়েছেন।

এদের মধ্যে মধ্যে জিয়াউর রহমান (২৮), জাবুর মিয়া (৩৫), ছমির উদ্দিন (৪০), রাইবুল (২০), নাইম (২১), খছরু মিয়া (৩৫) কে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ  হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। অপরাপর আহত টিটু মিয়া (২০), আবু তাহের (২৫), আবুল হোসেন ৪০), নাইদুল মিয়া (১৪), হেলাল মিয়া (১২), ইয়াবর উল্লা (৫৫), চমক আলী (৫০), জামির উদ্দিন (৩২), সুবেল (২২), ইমন (১৬), এরশাদ ৩০), ফরিদুল হক (১৭), নাজমুল (২৪), শফিকুল (২০), তানভির (১৮), নান্টু দাস (৩০), জানুর মিয়া (২৮), ইউছুফ আলী (২৮), দোলন মিয়া (২৫), দোলন আহমদ (৩০), দুলাল মিয়া (২২), ছামির মিয়া (৪০), সাইদুর রহমান (৩৫),মাজেদুল ইসলাম (৩০), জাবেদ মিয়া (২৫), মুজাহিদ মিয়া (৩০), আহমদ আলী (৩০), সুজাত মিয়া (২৮)সহ অপর আহতদের কে স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

সংর্ঘষ চলাকালে সাইদুর মিয়া দোকান ভাংচুর হয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। জগন্নাথপুর থানার ওসি (তদন্ত) খান মোহাম্মদ মাইনুল জাকির জানান, সংঘর্ষ থামাতে পুলিশকে ৯ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়তে হয়েছে। বর্তমানে  পরিস্থিতি  শান্ত রয়েছে।

(Visited 10 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here