সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে ৫ গ্রুপের তৎপরতা শুরু

0
110

1 (26)সিলেটের সংবাদ ডটকম: দীর্ঘ ৫ বছর পর সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সম্মেলন আগামী ৪ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে। এ ব্যাপারে নিশ্চিত করেছেন সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি রাহাত তরফদার। তিনি জানান, আগামী ৪ জুলাই সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকি নাজমুল আলম, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপকি বাহাদুর ব্যাপারীসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।এদিকে সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে শুরু হয়েছে জোর তৎপরতা।

জনশ্রতি রয়েছে যে, সিলেটের ছাত্রলীগের রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ করে আসছে আওয়ামীলীগ নেতাদের নিয়ন্ত্রণাধীন চারটি গ্রুপ। কমিটি গঠন থেকে শুরু করে ছাত্রলীগের সকল কার্যক্রম পরিচালনার নেপথ্যে থাকেন ওই নেতারা। প্রতিবার কমিটি গঠনের সময় শীর্ষ পদগুলো গ্রুপভিত্তিক ভাগবাটোয়ারার ফলে বঞ্চিত হন মেধাবী ও পরীক্ষিত নেতাকর্মীরা। পক্ষান্তরে আওয়ামী লীগ নেতাদের তদবিরে তাদের গ্রুপের অযোগ্য, অছাত্র ও বিতর্কিতরা পেয়ে যান গুরুত্বপূর্ণ পদ।

পুরাতন গ্রুপের সাথে এবার যোগ হয়েছে নতুন আরেকটি গ্রুপ। পুরাতন গ্রুপগুলো হচ্ছে:- জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন খান (তেলিহাওর গ্রুপ), মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল (দর্শন দেউড়ি গ্রুপ), শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আজাদুর রহমান আজাদ (টিলাগড় গ্রুপ) ও উপ দপ্তর সম্পাদক বিধান কুমার সাহা (কাশ্মির গ্রুপ)। আর নতুন গ্রুপটি হলো:- মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ এর গ্রুপ। আগামী ৪ জুলাই সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের কাউন্সিল নিয়ে তৎপর আওয়ামী লীগের পুরনো চার গ্রুপসহ মোট ৫ গ্রুপের নেতারা।

মহানগর ছাত্রলীগের শীর্ষ পদগুলো বাগিয়ে নিতে তারা তদবির শুরু করেছেন। ছাত্রলীগের ত্যাগী নেতাকর্মীদের অভিযোগ গ্রুপিংয়ের বলি হয়ে সিলেটে ছাত্রলীগ সাংগঠনিকভাবে ক্রমেই দুর্বল হচ্ছে। গতবার জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি গঠনের সময়ও এই চারটি গ্রুপ শীর্ষপদগুলো ভাগবাটোয়ারা করে নেয়। এবারও মহানগর ছাত্রলীগের সম্মেলনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগের চারটি গ্রুপের সাথে তৎপর হয়েছে নতুন গ্রুপটি।

এ ব্যাপারে সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের এক নেতা জানান, প্রতিবার আওয়ামী লীগের চার নেতা কমিটির শীর্ষপদগুলো ভাগবাটোয়ারা করে নেন। গতবার এর বিরোধীতা করে পাল্টা কমিটি হয়েছিল। এবারও আওয়ামী লীগ নেতাদের ওই চারটি গ্রুপ ছাত্রলীগের কমিটি নিয়ে তৎপরতা শুরু করেছে। ছাত্রলীগের কমিটিতে আওয়ামী লীগের হস্তক্ষেপের বিষয়টি স্বীকার করে আরেক নেতা জানান, গ্রুপিং রাজনীতির কারণে দল ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। এতে ত্যাগী অনেক নেতাকর্মী হতাশ হন।

গ্রুপিং ও ব্যক্তির বাইরে দলকে টেনে আনা উচিত। এতে প্রকৃত ত্যাগী ও মেধাবীরা মূল্যায়ন পাবে। উল্লেখ্য, ২০১১ সালের ৯ জুলাই সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি অনুমোদন পায়। ১০১ সদস্য বিশিষ্ট মহানগর ছাত্রলীগের কমিটিকে অনুমোদন দেয় কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি। ১০১ সদস্যের কমিটি পরবর্তীতে বর্ধিত করে ১৬৩ সদস্য গিয়ে ঠেকে।

গত কয়েক দিন আগে কেন্দ্রীয় কমিটি সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সম্মেলন আগামী ৪ জুলাই অনুষ্ঠিত হবে বলে দিনক্ষণ ঠিক করে। আর এরই পরিপ্রেক্ষিতে মহানগর ছাত্রলীগের বিভিন্ন পদে লড়তে তোড়জোড় শুরু করে দিয়েছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা।

(Visited 7 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here