শক্তি প্রদর্শনে প্রস্তুত সৌদি আরব

0
169

222 (3)সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: ঐতিহাসিকভাবে তেল সমৃদ্ধ এই রাজতন্ত্র মধ্যপ্রাচ্যের রাজনৈতিক এবং সামরিক ইস্যুতে একধরণের রক্ষণশীল দৃষ্টিভঙ্গির পরিচয় দিয়ে আসছে। অভ্যন্তরীণ স্থিতিশীলতার স্বার্থে সরাসরি কোথাও নাক গলানো থেকে বিরত থেকেছে। কিন্তু তেলসমৃদ্ধ এই রাজতন্ত্র এখন স্পষ্টতই বহুদিনের সেই কৌশল থেকে সরে এসে নিজের শক্তি প্রদর্শনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বেশ কিছু অজানা ঝুঁকি নিতেও তারা পিছপা হচ্ছেনা। প্রতিবেশী ইয়েমেনে সৌদি আরব গত চার মাসের বেশি সময় ধরে হুতি বিদ্রোহীদের সাথে যুদ্ধে লিপ্ত। সিরিয়াতে প্রেসিডেন্ট বাশার বিরোধী ইসলামপন্থি জঙ্গি গোষ্ঠীগুলোকে প্রতি নাটকীয়ভাবে সাহায্য বাড়িয়েছে সৌদি আরব। ইরানের প্রসঙ্গে সৌদি সরকার পশ্চিমাদের বার্তা দিয়েছে, যদি তারা নিশ্চিত হয় তেহরান পারমানবিক বোমা বানাতে সমর্থ হয়েছে, সৌদি আরবও ঐ পথে যেতে দ্বিধা করবে না।

কেন কৌশলে এই পরিবর্তন? কেন সৌদি আরব এই পথে এগুচ্ছে তার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে বিবিসির প্রতিরক্ষা বিষয়ক বিশ্লেষক ফ্রাঙ্ক গার্ডনার ঠিক দু বছর আগে সৌদি রাজ পরিবারের দুই ক্ষমতাসীন সদস্যের সাথে তার একটি সাক্ষাতের উল্লেখ করেছেন। ঐ সাক্ষাৎ হয়েছিল জেদ্দায় লোহিত সাগরের পাশে এক প্রাসাদে তৎকালীন যুবরাজ এবং বর্তমান বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল-আজিজ আল সউদ এবং তার সবচেয়ে প্রিয় পুত্র প্রিন্স মোহামেদ বিন সালমানের সাথে।

সে সময় বাদশাহ সালমান সৌদি প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ছিলেন এবং মরক্কোতে অবকাশ যাপন কাটছাঁট করে ফিরে এসেছিলেন। কারণ ছিল, সিরিয়ায় প্রেসিডেন্ট আসাদের বিরুদ্ধে মার্কিন ক্ষেপনাস্ত্র হামলায় পরিকল্পনায় যুক্ত হওয়া। রাশিয়ার চাপে সেই ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পরিকল্পনা শেষ মুহূর্তে স্থগিত হয়ে যায়।

কিন্তু সৌদি আরব চাইছিল মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের একমাত্র মিত্র প্রেসিডেন্ট আসাদকে ক্ষমতাচ্যুত করে সিরিয়ায় সুন্নিপন্থি সরকার বসুক। ফলে তারপর থেকে সৌদি শাসকদের ভেতর এমন ধারণা শক্ত হচ্ছে যে যুক্তরাষ্ট্র তাদের স্বার্থ দেখছে না। এবং তখন থেকেই সৌদি রাজপরিবারের সদস্যরা এবং নীতি নির্ধারকরা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা নিজেরাই নিজেদের মত কাজ করবেন। সূত্র :বিবিসি

(Visited 1 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here