পুরুষ থেকে যেভাবে নারী হলেন!

0
209

we240সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: বগুড়ায় এক সন্তানের জনক রনি মিয়া (২৫) পুরুষ থেকে নারীতে রূপান্তরিত হয়েছেন। এখন তার নাম রাখা হয়েছে রহিমা আক্তার। ঘটনাটি ঘটেছে বগুড়া সদর উপজেলার নিশিন্দারা ইউনিয়নের দশটিকা উত্তর পাড়া গ্রামে।

তিনি ওই গ্রামের বুলু মেকারের সন্তান। এ খবর ছড়িয়ে পড়ার পর রহিমাকে এক নজর দেখার জন্য উৎসুক মানুষ তার বাড়িতে ভীড় করছে। জানা গেছে, রনি মিয়া ২০ বছর বয়সে ঢাকায় মারুফা নামে এক মেয়েকে বিয়ে করে সংসার জীবন শুরু করেন। তার স্ত্রীর গর্ভে জন্ম নেয় কন্যা সন্তান। নাম রাখেন মিম। বর্তমানে মিমের বয়স ৪ বছর। দ্বিতীয় সন্তান জন্মের সময় মারা যায় স্ত্রী মারুফা।

এরপর দ্বিতীয় বিয়ে করেন রনি। কিন্তু বিয়ের কিছু দিন পর রনির শারীরিক অক্ষমতার কারণে দ্বিতীয় স্ত্রী তাকে ছেড়ে চলে যায়। এরপর থেকেই রনির শারীরিক পরিবর্তন স্পষ্ট হতে থাকে। রনির পারিবারিক সূত্র জানায়, শরীরে অস্বাভাবিক পরিবর্তন ঘটতে থাকলে গত ২০ আগস্ট থেকে মেয়েদের পোষাক পরা শুরু করেন রনি। নারীতে রূপান্তরিত রনি জানান, “আমি মেয়ে হয়ে খুশি হয়েছি। আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করছি।

রনির বাবা-মা জানান, “আমার ছেলে ছোট থেকেই মেয়েলী স্বভাবের ছিল। সে মাঝে মাঝে মেয়েদের পোশাক পরে চলাফেরা করতো। বিয়ের বাড়িতে নাচ গান করতো। গত ৮/৯ মাস পূর্ব থেকে তার দৈহিক পরিবর্তন লক্ষ্য করি। কিন্তু মান-সম্মানের ভয়ে এতদিন প্রকাশ করিনি। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নারীতে রূপান্তরিত হওয়ার পর থেকে রনি গোকুলের পূর্ব পলাশবাড়ীতে তার এক বন্ধুর বাড়িতে রয়েছে।

জনৈক আপেল হোসেনকে বিয়ে করে সেখানেই নতুন জীবন শুরু করেছেন তিনি। যদিও এলাকাবাসী এই ঘটনাকে দেখছে ভিন্ন চোখে। রনির বন্ধু ফরিদুল জানায়, ঢাকা পিজি হাসপাতালের হরমন বিশেষজ্ঞ ডাঃ এম হাসনাতের অধীনে রনির চিকিৎসা চলছে। এদিকে, পুরুষ থেকে নারীতে রূপান্তরের খবর ছড়িয়ে পড়ার পর থেকেই রনির বাড়িতে উৎসুক মানুষের ভীড় বেড়েছে। এক নজর দেখার জন্য অনেকেই ছুটে যাচ্ছেন সেখানে।

(Visited 9 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here