কামরুলকে আনতে সৌদি যাচ্ছেন পুলিশের তিন কর্মকর্তা

0
139

45 (2)সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: সিলেটের বহুল আলোচিত শিশু শেখ সামিউল আলম রাজন হত্যা মামলার প্রধান আসামি কামরুল ইসলামকে দেশে ফিরিয়ে আনতে সৌদি আরবে যাচ্ছেন পুলিশের উধ্বতন তিন কর্মকর্তা।

তাঁরা হচ্ছেন পুলিশ সদর দফতরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহবুবুল করিম, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আফম নিজাম উদ্দিন ও সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) রহমত উল্লাহ। রাজনকে হত্যার পরপরই দেশ থেকে সৌদিতে পালিয়ে যায় ঘাতক কামরুল ইসলাম। সে ওই দেশের প্রবাসী ছিল।

তারপর সেখানে তাকে আটক করা হয়। সৌদির সাথে বাংলাদেশের বন্দিবিনিময় চুক্তি না থাকায় তাকে ফেরানো জটিল হয়ে পড়ে। এমন অবস্থায় কামরুলকে ফেরত দেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে সৌদি সরকারের কাছে ৩২ পৃষ্ঠার একটি ফাইল পাঠায় বাংলাদেশের। সৌদি রাজকীয় আদালতও তাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর নির্দেশ দেয়।

এর আগে আন্তর্জাতিক পুলিশি সংস্থা ইন্টারপোলও কামরুলের নামে নোটিশ জারি করে। অন্যদিকে সরকারের শীর্ষমন্ত্রীরা বারবার এই ঘাতকে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে নানা আশ্বাস ও দিনক্ষণের কথা বলছিলেন। কিন্তু তিনমাসের বেশি সময়েও তার দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতি হচ্ছিল না। এমন প্রেক্ষাপটেই সৌদিতে তিন পুলিশ কর্মকর্তাকে পাঠানোর উদ্যোগ নিল সরকার।

এ ব্যাপারে সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) রহমত উল্লাহ জানিয়েছেন, তাদের সৌদি আবারে যাবার ব্যাপারে পুলিশ সদর দপ্তর থেকে নির্দেশনা পেয়েছেন। কিন্তু কবে সৌদির উদ্দেশে তারা যাত্রা করবেন, তা এখনও নির্ধারণ হয়নি। তবে, দুয়েকদিনের মধ্যেই তা চূড়ান্ত হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

ইন্টারপোল ও সৌদি পুলিশের সহায়তায় কামরুলকে দেশে ফেরানো হবে বলেও তিনি জানান। গত ৮ জুলাই সিলেট নগরীর কুমারগাঁওয়ে নির্মম নির্যাতনে খুন করা হয় শিশু সামিউল আলম রাজনকে। ঘটনার পরদিনই সৌদি পালিয়ে যায় কামরুল। ১৩ জুলাই রাত ৮টার দিকে সৌদি প্রবাসী বাংলাদেশিদের সহায়তায় কামরুলকে আটক করে সৌদি পুলিশ। ২১ জুলাই ইন্টারপোল তার নামে নোটিশ জারি করে।

(Visited 3 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here