শহরতলীর টুকেরবাজারে ছাত্রদল ও পুলিশ সংঘর্ষ : থানায় মামলা দায়ের

0
106

1 (3)সিলেটের সংবাদ ডটকম: শহরতলীর টুকেরবাজারে ছাত্রদল নেতাকর্মী ও পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শুক্রবার রাতে জালালাবাদ থানার এসআই মোঃ আতিকুর রহমান বাদি হয়ে ১৪ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরো ২৫/৩০ জন নেতাকর্মীকে আসামী করে থানায় বিস্ফোরক আইনে এ মামলাটি দায়ের (নং-১৫) করেন।

মামলার আসামীরা হচ্ছেন জালালাবাদ থানার শাহপুরের আলতাফ হোসেন সুমন (৩০), শহরতলীর সতর দক্ষিণপাড়ার আশিকুজ্জামান আশিক (২৮), একই এলাকার আয়াত উল্লাহ (২৪),নগরীর আখালিয়াঘাটের এনাম হোসেন (৩২), মোগলগাঁওয়ের মোহাম্মদ আলী দেলোয়ার ওরফে দেলোয়ার হোসেন (২৮), একই এলাকার আমিনুল হক (২৬), মেদেনীমহলের শাহনুর আহমদ (৩০), নগরীর নেহারীপাড়ার আজহারুল ইসলাম হাদী (৩২), শহরতলীর বড়শালার জুয়েল আহমদ (২৮), হাটখোলার বাবরুল (২৫), হায়দরপুরের রাজু (২৩), একই এলাকার জুবের আহমদ (২৩) টুকেরবাজার কালিগাঁওয়ের জুয়েল আহমদ (২৩) ও মোল্লারগাঁওয়ের সালমান (২৬)।

এদিকে, ঘটনার সময় গ্রেফতার হওয়া জুয়েল আহমদকে শনিবার পুলিশ আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করেছে। মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা গেছে, মহানগর ছাত্রদল নেতা এহতেসামুল হক সবুজের নিঃশর্ত মুক্তির দাবীতে গত শুক্রবার বিকেল পৌনে ৪ টার দিকে টুকেরবাজার এলাকায় মিছিল বের করে ছাত্রদল নেতাকর্মীরা।

পরে তারা সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের নয়গ্রাম সমাজ কল্যাণ যুব পরিষদের সামনে রাস্তা ও যানচলাচল বন্ধ করে মিছিল-সমাবেশ করতে থাকে। অনুমতি ছাড়া ছাত্রদল নেতাকর্মীরা মিছিল সমাবেশ করছে এমন খবর পেয়ে জালালাবাদ থানা পুলিশের একটি দল সেখানে গিয়ে তাদেরকে বাঁধা দেয়। এতে পুলিশের বাঁধা প্রত্যাখান করে ছাত্রদল নেতাকর্মীরা তাদেরকে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে।

এ সময় ইটপাটকেলের আঘাতে এসআই মোঃ আতিকুর রহমান আহত হন। তখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ শর্টগানের ২ রাউন্ড রাবার কার্তুজ নিক্ষেপ করে ঘটনাস্থল থেকে জুয়েল আহমদ নামের একজনকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়।

জালালাবাদ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নারায়ন চন্দ্র দেবনাথ জানান, ঘটনাস্থল থেকে ককটেলের বিস্ফোরিত কিছু অংশ ও ছোট-বড় ৬টি ইটের টুকরা জব্ধ করা হয়েছে। তিনি বলেন, ধৃত আসামী জুয়েল ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকারও করেছে বলে জানান তিনি।

(Visited 1 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here