প্রকৌশলী নজরুলকে নিপুর মন্তব্য

0
187

03

সিলেটের সংবাদ ডটকম: সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হিরণ মাহমুদ নিপু প্রকৌশলী নজরুলকে নিয়ে নিজের ফেসবুকে মন্তব্য প্রকাশ করেছেন। বুধবার রাতে তিনি এ মন্তব্য তুলে ধরেন।

নিপুর দেওয়া সেই মন্তব্যটি হুবুহু তুলে ধরা হলো:- দুর্নীতি, অনিয়ম ও স্বেচ্ছাচারিতার প্রতিবাদ করায় নজরুল হাকিম সাহেব ধুয়া তুলসী পাতা সেজে জিডি করেছেন শুনেও প্রথম বার চুপ থেকে ছিলাম বিবেকের তাড়নায়।

ভেবেছিলাম চুর ডাকাত দূর্নীতিবাজ যাই হোক তিনি একজন নির্বাহী প্রকৌশলী, বিসিএস ক্যাডার। তাই চাইনি উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত লোকের মুখোশ উন্মোচন করতে। কিন্ত বানোয়াট মিথ্যে তথ্য দিয়ে একের পর এক জিডি এন্ট্রিতে আমি এখন নিজেই বিব্রত/ বিরক্ত বোধ করছি। পুণরায় জিডি করা হয়েছে।

তাই গেল দুই দিন ধরে এই খবর ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে। এতে সামাজিক, রাজনৈতিক ও পারিবারিক ভাবে বিব্রতকর অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। সাংবাদিক, প্রশাসনিক, রাজনৈতিক, সামাজিক ব্যক্তি অনেকেই ফোন করে বিষয়টির সত্যতা জানতে চেয়েছেন।

পরপর দুটি জিডি অবশ্যই ভিন্ন ধরনের ষড়যন্ত্রের আভাস তাই আমার জিডি এন্টি করা উচিত কি না জানিনা। তবে সত্য প্রকাশের প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য বলে মনে করছি। বিগত ২৫/০৫/২০১৫ তারিখে জগন্নাথপুর শ্রীরামীশি স্কুলের ৬৮ লক্ষ টাকার কাজের দরপত্র আহ্বান করা হয় যাহার প্রজেক্ট কোড-৭০১৬, প্যাকেজ নং ০১ ও ০২।

উক্ত কাজ পাইয়ে দিবেন বলে উনার সাথে কিছু শর্ত সাপেক্ষে মৌখিক চুক্তি হয়। শর্ত সমূহ হচ্ছে দুই লক্ষ টাকা অগ্রিম দেওয়ার কথা থাকলেও আমি কাজ পাওয়ার পর টাকা দেওয়ার আগ্রহী ছিলাম। সেই চুক্তি ভিত্তিক উনার কথামত দুটি লাইসেন্স দিয়ে আলাদা আলাদা রেইটে দরপত্র দাখিল করি দরপত্রের সাথে ক্যাশ দুই লক্ষ চব্বিশ হাজার টাকার দুটি পে-ওডার এখনও উনার অফিসে রয়েছে। শর্ত ছিল আমি যেন ছাপ না দেই।

আমাকে কাজ পাইয়ে দিতে তিনি ইচ্ছাকৃত ভাবেই সময় বিলম্ব করবেন যাতে অন্য যারা দরপত্র দাখিল করবে তারা দরপত্রের সাথে দাখিল করা লোন কৃত সিকিউরিটির টাকার বেশী সূধ আসবে বিধায়, ধৈর্য্যহারা হয়ে সিকিউরিটির টাকা ফেরত নিয়ে যাবে তখন তিনি আমাকে কাজ দিতে কোন বাধা থাকবেনা।

উনার কথামত সব ধরনের শর্ত পূরণ করলেও অগ্রিম দুই লক্ষ না দিয়ে এক লক্ষ টাকা দিয়েছিলাম ইহাই মূল কারণ। মাঝে মধ্যে উনাকে ফোনে কাজের কথা জিজ্ঞেস করতাম। উনি খুব সুন্দর করে বলতেন ‘আমার উপর বিশ্বাস রাখিও আমি তোমাকে ফোন করবো। তোমাকে অফিসে আসতে হবেনা’। শর্ত মোতাবেক আমি মাত্রা অতিরিক্ত সময় অপেক্ষা করি কিন্ত যেখানে অন্য ঠিকাদাররা বিরক্ত হবার জন্য কৌশল অবলম্বন করেছেন সেখান উনার মনভুলোনো কথাবার্তায় উক্ত বিষয়ে আমার সন্দেহ হলে আমি ১৭/০১/২০১৬ তারিখে অফিসে যাই।

সেই দিন উপস্থিত ছিলেন টুলটিকর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ এর সাধারণ সম্পাদক নব-কিশোর ফার্মের স্বত্তাধিকারী ঠিকাদার নিরেশ দাশ ও সিলেট মহানগর সেচ্ছাসেবক লীগ এর সাধারণ সম্পাদক ভাটিবাংলা ফার্মের স্বত্তাধিকারী ঠিকাদার দেবাংশু দাশ মিটু তাদের সামনে প্রকৌশলির সাথে যখন আলাপ করছিলাম তখন তারা কোন কাজ জানতে চাইলে উক্ত কাজের কথা বলার সাথে সাথে তার আঙুল দিয়ে আমার পিছনে বসে থাকা উক্ত কাজ প্রাপ্ত ঠিকাদারকে দেখান এবং কাজটির অগ্রগতির জানতে চান।(বাকি অংশের অপেক্ষা করুন)।

উল্লেখ্য, গত ২১ মার্চ জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় সাধারন ডায়েরী (জিডি) করেন শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর সিলেট জোনের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ নজরুল হাকিম। সিলেট কোতেয়ালি মডেল থানায় সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হিরন মাহমুদ নিপুর বিরুদ্ধে তিনি এ জিডি (নং-১৩২০) করেন। এরপর তিনি ফের ১৭ এপ্রিল সিলেট কোতোয়ালি থানায় আরেকটি জিডি (নং-৭৭৮) দায়ের করেন।

(Visited 6 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here