অবশেষে ছাত্রলীগের আংশিক বোধদয়!

0
502

অবশেষে সিলেট ছাত্রলীগের আংশিক বোধদয় হলো। গোলাম রহমান চৌধুরী রাজনের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মঙ্গলবার সিলেট এমসি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ব্যানারে একটি মানববন্ধন করা হয়।

মানববন্ধনে উপস্হিত সবাই ছিলেন এমসি কলেজ, সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ। তবে কেন শুধু ‘সিলেট এমসি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ’ লেখা হলো, নাকি এমসি কলেজের পুরনো ইতিহাসকে স্বরন করানো হচ্ছে এ নিয়ে শুরু হয়েছে আরেক নতুন কাহিনী।

রাজনের উপর হামলার ৮ দিন পর এমন কর্মসুচি দেখে মনে হচ্ছে এরা আজ ঘুম থেকে জেগেছেন! ঘূরে ফিরে এক জায়গায় এসে প্রশ্ন দাড়ায় রাজন আসলে কে? সাধারন জনগন, বহিরাগত, ভাড়াটে সন্ত্রাসী নাকি ছাত্রলীগের দুর্দিনের কান্ডারি। ১ম, ২য় ও ৩য় প্রশ্নের উত্তর অবশ্যই না। তাহলে শেষ প্রশ্নের উত্তর যদি হা হয় তাহলে তার প্রতি এমন অবিচার কেন? কেনইবা রাজনের রক্তে রঞ্জিত হলো তথাকথিত সন্ত্রাসীদের হাত।

আর কেনইবা তাকে এমন মুল্য দিতে হলো, নাকি এটা কোন বাকরুদ্ধ সার্কাসের অংশ? এমন হাজারো প্রশ্ন নিয়ে আলোচনা চলছে। রাজনের উপর হামলার পর ছাত্রলীগের ত্যাগী কয়েকজন নেতা-কর্মীর চেহারায় ফুটে উঠেছিল প্রতিবাদের আগুন। কিন্তু বিধি বাম, সেই আগুন নিমিষেই আবার নিভে যায় কোন এক অজানা হাতের ইশারায়। যা হয়তো কোন একদিন বের হয়ে আসবে।

আমরা সে দিনের অপেক্ষায় রইলাম। উল্লেখ্য, গত ৩০ জানুয়ারি সোমবার মুখোশ পরা কয়েকজন সন্ত্রাসী গোলাম রহমান চৌধুরী রাজনকে কুপিয়ে আহত করে। এসময় তার সাথে আরো দুজনও আহত হন। পরে তাকে গুরুতর অবস্হায় প্রথমে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ এবং পরে ঢাকা পঙ্গুঁ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। জানা যায়, তাঁর দুই পা ও হাতে সাতটি কোপ রয়েছে। কোপে ডান পায়ের হাড় ভেঙে গেছে। বাঁ হাতের দুটো আঙুলও প্রায় বিচ্ছিন্ন অবস্থায় রয়েছে। লেখক:- সিলেট জেলা ছাত্রলীগের কর্মী    

প্রকাশিত মতামত লেখকের একান্তই নিজস্ব। তাই প্রকাশিত লেখার জন্য সিলেটের সংবাদ ডটকম কর্তৃপক্ষ লেখকের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে আইনগত বা অন্য কোনও ধরনের কোনও দায় নেবে না।

(Visited 5 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here