মিতালী ফার্মেসীতে ওষুধ বিক্রির আড়ালে চলছে অন্যরখম ধান্দা

0
9560

সিলেটের সংবাদ ডটকম: চিকিৎসকদের পরামর্শ কিংবা ব্যবস্থাপত্র ছাড়া ওষুধ বিক্রি নিষিদ্ধ থাকলেও তা মানছে না সিলেটের অনেক ফার্মেসী। সেকারনেই নেশা, যৌনশক্তি বাড়ানোর নানা ওষুধসহ ঘুমের ওষুধ বিক্রি করছে অহরহ। আর এরখমই এক ফার্মেসীর উদাসীনতার কারনে প্রান গেল এক গৃহবধুর। ঘটনাটি সিলেট শিবগঞ্জস্হ লাকড়িপাড়াস্থ  রংধনু-৬ নং বাসায়।

ঐ বাসার শফিক মিয়ার স্ত্রী সুমনা মঙ্গলবার বিকেলের দিকে শিবগঞ্জের মিতালী ফার্মেসী থেকে ৪০টি ঘুমের ট্যাবলেট (ট্রিপটিন ২৫এমজি) ক্রয় করেন। আর সন্ধা রাতে ক্রয়কৃত ঘুমের ট্যাবলেটগুলো সেবন করে দরজা বন্ধ করে ঘুমিয়ে যান। রাত ১০টার দিকে তার স্মামী শফিক মিয়া তাকে অনেক ডাকাডাকি করে সারাশব্দ না পেয়ে দরজা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে  সুমনার মৃতদেহ খাটের উপর পরে থাকতে দেখেন।

এসময় পাশেই ছিলো মিতালী ফার্মেসী থেকে কেনা ৪০টি ঘুমের ঔষধের খোলস ও মিতালী ফার্মেসীর মেমো। এ ঘটনায় মিতালী ফার্মেসীর বিরোদ্ধে চিকিৎসকদের পরামর্শ কিংবা ব্যবস্থাপত্র ছাড়া ওষুধ বিক্রিসহ মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রির অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।স্হানীয় কয়েকটি সুত্র থেকে জানা যায়, মিতালী ফার্মেসীর মালিক জুবের তার ফার্মেসীর আড়ালে নানা অবৈধ ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন। বেশি লাভের আশায় ফার্মেসির কর্মচারিরা ঘুমের ওষুধ বিক্রির পাশাপাশি নেশা জাতীয় ওষুধগুলো অবাধে বিক্রি করছেন। যুবক ছেলেরা যদি কেউ এই ফার্মেসিতে গিয়ে বলে ভাই আমার জ্বর, মাথাব্যথা বা শরীরে ব্যথা, কী খাই বলেন?

ফার্মেসি মালিক বা কর্মচারিরা তখন তাদের হাতে ধরিয়ে দিচ্ছেন বিভিন্ন ধরনের অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ। যা খেয়ে নেশায় আসক্ত হয়ে পড়ছেন যুবকরা। কয়েকটি সুত্র থেকে জানা যায়, মিতালী ফার্মেসীর মালিক জুবেরের রয়েছে সোনা পাচারের ব্যবসা।

তার জায়গার ব্যবসাও রয়েছে। যা তিনি অসহায় লোকদের কাছ থেকে জোর পুর্বক নিজের নামে লিখেয়ে নিয়েছেন বলেও জানা যায়। অভিযোগ রয়েছে মিতালী ফার্মেসীর কর্মচারিরা এলাকার লোকজনদের কাছ থেকে ইচ্ছেমতো ওষুদের দাম আদায় করে থাকেন।

এ ব্যাপারে মিতালী ফার্মেসীতে ফোন করে জানতে চাইলে কেউই উত্তর দিতে পারেননি। তবে উল্টো হুমকি দিয়ে বলেন, বেশি বাড়াবাড়ি করলে আমাদের নেতাকে বলে আপনাকে সাইজ করে দিব। তবে তিনি তার নাম বলতে অপরাগতা প্রকাশ করেন। পরে মিতালী ফার্মেসীর মালিক জুবেরের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে একজন মহিলা ফোন ধরে তিনি বাইরে বলে জানান। যার জন্য তার কোন বক্তব্য নেয়া যায়নি।

(Visited 46 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here