সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: পরিবারের সবচেয়ে আপনজন বাবা-মায়ের সঙ্গে কথা কাটাকাটির বনিবনা না হওয়ায় ১৪ বছরের কিশোরী বাড়ি ছেড়ে বেরিয়ে এসেছিল। সেটাও বছর তিনেক আগের কথা। রাস্তায় ঘুরতে ঘুরতে পড়ে গিয়েছিল একটি কুচক্রের খপ্পরে।

তারাই কিশোরীটিকে নিয়ে গিয়েছিল ওই মোটেলে। যেখানে দিন নেই, রাত নেই সকলের চোখের সামনে জোর করে রমরমিয়ে চলে যৌন ব্যবসা। অভিযোগ, একেকটা কিশোরীকে বছর দু’য়েকের মধ্যে অন্তত এক হাজার পুরুষের শয্যাসঙ্গীনী হতে হয়।

হতে বাধ্য করা হয়, দু’বেলা, দু’মুঠো খাওয়ার জন্য। রাস্তা থেকে ধরে নিয়ে গিয়ে এমন হাজার হাজার কিশোরীকে ওই মোটেলে আটকে রাখার অভিযোগ উঠেছে। তাদের বাধ্য করা হয় মোটেলে আগত অতিথিদের সন্তুষ্ট করার জন্য। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর-পূর্ব ফিলাডেলফিয়ায় রাস্তার পাশের একটি মোটেল ‘রুজভেল্ট ইন’ এ এই ব্যবসা চলছে রমরমিয়ে।

সকলের চোখের সামনেই। ওই কিশোরী সম্প্রতি একটি মামলা দায়ের করেছেন ওই মোটেল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে। মোটেলের মালিক যজ্ঞ পটেল বলেছেন, ‘মামলার নথিপত্র এখনও হাতে পাইনি। তবে আমরা অতিথিদের শুধু ঘর ভাড়া দেয়।

আর বড় কোনও গণ্ডগোল হলে তাঁদের মোটেল ছেড়ে দিতে বলি। আমেরিকার ‘ন্যাশনাল হিউম্যান ট্রাফিকিং হটলাইন’ জানাচ্ছে, ২০০৭ থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে হোটেল ও মোটেলগুলিতে এমন যৌন ব্যবসার ১, ৪২৪টি ঘটনা নথিভুক্ত হয়েছে। যার শিকার হয়েছেন ১,৮৬৭ জন কিশোরী। ডেইলি মেইল, পিপল ডটকম।

(Visited 1 times, 1 visits today)

NO COMMENTS

Leave a Reply