সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: প্রবাসীদের কল্যাণে বিশেষ দায়িত্ব দিয়ে ‘প্রবাসী কল্যাণ বোর্ড আইন-২০১৭’ খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। এই বোর্ড প্রবাসীদের পরিবারের সদস্যদের কল্যাণে প্রকল্প গ্রহণ ও পরিচালনা করবে।

প্রবাসী কর্মী ও তাদের পরিবারের কল্যাণে তহবিল থেকে অর্থ বরাদ্দ দেয়াসহ বিভিন্ন সুবিধা নিশ্চিত করবে এই বোর্ড। সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন।

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সাংবাদিকদের এ কথা জানান। তিনি বলেন, নতুন এই আইন কার্যকরের সঙ্গে সঙ্গে ওয়েজ অনার্সসহ কল্যাণ তহবিল বিধিমালা কার্যকারিতা হারাবে। প্রবাসী কর্মী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের অধিকার সুরক্ষা ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং তাদের কল্যাণের জন্য এই আইন করা হয়েছে।

জানা গেছে, এই বোর্ড অভিবাসীদের পরিবারের সদস্যদের কল্যাণার্থে প্রকল্প গ্রহণ ও পরিচালনা করবে; প্রবাসী কর্মী ও তাদের পরিবারের কল্যাণার্থে তহবিল থেকে অর্থ বরাদ্দ দেবে; বিদেশে বাংলাদেশ মিশনগুলোর মাধ্যমে প্রবাসীদের কল্যাণে কার্যক্রম পরিচালনা ও তত্ত্বাবধান করবে; অভিবাসী মৃত কর্মীর লাশ স্বদেশে ফেরত আনা এবং সৎকারে সহায়তা প্রদান করবে; অসুস্থ, আহত, পঙ্গু, অক্ষম প্রবাসীদের দেশে আনা ও চিকিৎসায় সহায়তা দেবে; বিদেশে মৃত্যুবরণকারীর পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেবে; প্রবাসীদের মৃত্যুজনিত ক্ষতিপূরণ, বকেয়া বেতন, ইন্স্যুরেন্সের অর্থ ও সার্ভিস বেনিফিট আদায়ে সহায়তা করবে; প্রবাসী কর্মীদের মেধাবী সন্তানদের বৃত্তি প্রদান ও তাদের আইনি সহায়তা দেবে; প্রবাসী কর্মীদের জন্য তথ্যকেন্দ্র, হাসপাতাল ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান স্থাপন ও পরিচালনা করবে।

এছাড়া বিদেশে কর্মরত কোনো নারী অভিবাসী বিপদগ্রস্ত বা দুর্ঘটনার শিকার হলে তাকে উদ্ধার করে দেশে ফেরত আনা, চিকিৎসা ও আইনি সহায়তা প্রদান করা; দেশে প্রত্যাগত নারী অভিবাসী কর্মীদের সামাজিক ও অর্থনৈতিকভাবে পুনর্বাসন করা এবং নারী অভিবাসীদের নিরাপত্তার জন্য দেশে কিংবা বিদেশে সেফ হোম প্রতিষ্ঠা ও পরিচালনা করা হবে প্রবাসীকল্যাণ বোর্ডের কাজ।

NO COMMENTS

Leave a Reply