টানা বৃষ্টিতে দুর্ভোগে নগরবাসী

0
12

সিলেটের সংবাদ ডটকম: সিলেট নগরীসহ এ বিভাগের বিভিন্ন অঞ্চলে গত কয়েকদিন ধরে টানা বৃষ্টিপাত হচ্ছে। এরই মধ্যে এ বিভাগের বোরো ফসলের অনেক কাঁচা ফসল পানির নিচে তলিয়ে গেছে। কৃষকদের আর্তনাদে ভারী হয়ে উঠছে গ্রামীন এলাকা।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, আগামী ৬ এপ্রিল পর্যন্ত বিরুপ আবহাওয়া বিরাজ করতে পারে। হতে পারে বৃষ্টিপাতও। এদিকে, টানা বর্ষণে দুর্ভোগে পড়েছেন সিলেট নগরীর মানুষও। দিনভর বৃষ্টিপাতে রাস্তায় পানি জমে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে।

নগরীর অনেক রাস্তা কর্দমাক্ত হয়ে পড়েছে। এর ফলে নগরীর ব্যবসায়ী, চাকুরীজীবী, শিক্ষার্থীসহ অন্যান্য পেশার লোকজন পড়েছেন বিপাকে। অযাচিত এ দুর্ভোগে অনেকেই কর্মস্থলে স্বস্তিতে যেতে পারছেন না। নগরীর বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা ভারী বর্ষণের কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেতে পারছে না।

বিঘ্ন ঘটছে তাদের পড়ালেখায়। বৃষ্টিপাতের কারণে ব্যবসা-বাণিজেও মন্দাভাব পড়েছে। মেট্টোপলিটন ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগের শিক্ষার্থী মো. শাহরিয়ার জানান, গত কয়েক দিন ধরে ভারী বৃষ্টিপাতের জন্য ক্যাম্পাসে যেতে পারি না। এতে শ্রেণীপাঠদানে নিয়মিত হতে পারছি না। টানা বৃষ্টিপাতে লেখাপড়ায় ব্যাঘাত ঘটছে বলেও তার মন্তব্য।

চাকুরীজীবী মো. সেলিম আহমদ বলেন, টানা বৃষ্টিপাতের মধ্যে কর্মস্থলে যাওয়া একটি কঠিন কাজ হয়ে দাঁড়িয়েছে। রাস্তায় বৃষ্টির পানি নতুবা কর্দমাক্ত হালকা পানি যেকোন সময় পোষাক নষ্ট করে দেয়। এছাড়া, রয়েছে গণপরিবহনেরও সংকট। এই সুবাদে পরিবহন শ্রমিকরা আদায় করছে অতিরিক্ত ভাড়া। ব্যবসায়ী নজরুল ইসলাম জানান, বৃষ্টিপাত ব্যবসায়ীদের জন্য একটি নেতিবাচক বিষয়।

বৃষ্টিপাত ব্যবসার গতিতে থামিয়ে দেয়। বৃষ্টিপাতের কারণে ক্রেতারা না আসায় তুলনামুলক অনেক কম ব্যবসা হচ্ছে বলে তার মন্তব্য। সিলেট আবহাওয়া অফিসের প্রধান আবহাওয়াবিদ সাঈদ আহমদ চৌধুরী জানান, সোমবার সকাল ৬টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত সিলেটে ৩১.৩ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। আর সোমবার সকাল ৬টা থেকে পূর্ববর্তী ২৪ ঘন্টায় বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ৭১.৪ মিলিমিটার।

এছাড়া, রোববার সকাল ৬টা পূর্ববর্তী ২৪ ঘন্টায় বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয় ১২৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। তিনি জানান, আগামী ৫/৬ এপ্রিল পর্যন্ত বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকতে পারে। সুরমা ও কুশিয়ারার উজানে এরই মধ্যে ১৪০ মিলিমিটার পর্যন্ত বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এ থেকে বোঝা যাচ্ছে, পরিস্থিতি আরো খারাপ আকার ধারণ করতে পারে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here