রাসায়নিক হামলায় প্রাণ গেল ৫৮ সিরীয় নাগরিকের

0
23

সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: সিরিয়ার উত্তর-পূর্বাঞ্চলের ইদলিব প্রদেশে সম্ভাব্য রাসায়নিক হামলায় ১১ শিশুসহ কমপক্ষে ৫৮ জন নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার ইদলিবের খান শেখন শহরে বিষাক্ত গ্যাস হামলায় এ হতাহতের ঘটনা ঘটেছে।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক পর্যবেক্ষক সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস বলছে, রাসায়নিক হামলায় আরো কয়েক ডজন মানুষ আহত হয়েছে। মঙ্গলবার সকালের দিকে ইদলিবের কেন্দ্রের খান শেখন শহরে ওই বিষাক্ত গ্যাস হামলা হয়েছে।

ইদলিবের স্বাস্থ্য অধিদফতর বলছে, গ্যাস হামলায় নিহতের সংখ্যা শতাধিক হতে পারে। এছাড়া আহত হতে পারে আরো ৪০০ মানুষ। সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস বলছে, গ্যাসের প্রভাব ও দম বন্ধ হয়ে এ হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া গ্যাস হামলার ভিডিও ছবিতে দেখা যাচ্ছে, শিশু ও প্রাপ্তবয়স্করা নিস্তেজ হয়ে পড়ে আছে।

এদের অনেকেই শ্বাসকষ্টে ভুগছেন। অনেকের মুখ দিয়ে ফেনা বেরিয়ে আসছে। নিহতদের অধিকাংশই বেসামরিক নাগরিক; এদের মধ্যে ১১ শিশু রয়েছে বলে বিবিসি জানিয়েছে। যুক্তরাজ্যভিত্তিক ওই পর্যবেক্ষক সংস্থাটি বলছে, মঙ্গলবার সকালে বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত খান শেখনে সিরিয়ার সরকারি বাহিনী অথবা রুশ বিমান থেকে হামলা চালানো হয়ে থাকতে পারে।

তবে তাৎক্ষণিকভাবে সিরীয় সেনাবাহিনীর মন্তব্য পাওয়া যায়নি। সিরিয়ার একটি সেনা সূত্র ডেইলি মেইলকে জানিয়েছে, গত সপ্তাহে সিরীয় সরকারি বাহিনীর বিরুদ্ধে রাসায়নিক হামলার যে অভিযোগ আনা হয়েছিল তা মিথ্যা বলে দাবি করেছে দেশটির সেনাবাহিনী। সিরীয় সেনাবাহিনী বলছে, তারা অতীতে কখনো রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার করেনি এবং ভবিষ্যতেও করা হবে না।

তবে ব্রিটিশ এই পর্যবেক্ষক সংস্থা বলছে, তারা হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত শেখনে রাসায়নিক উপাদান পাওয়ার বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে নিশ্চিত হতে পারেননি। এদিকে স্থানীয় কিছু গণমাধ্যম চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে বলছে, রাসায়নিক হামলায় সারিন গ্যাসের ব্যবহার হয়ে থাকতে পারে। সিরিয়ার বিরুদ্ধে এর আগেও রাসায়নিক হামলার অভিযোগ উঠলেও দামেস্ক বরাবরই তা প্রত্যাখ্যান করে আসছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here