সিলেটের সংবাদ ডটকম এক্সক্লুসিভ: সিলেট জেলার সদর উপজেলার ৫ নং টুলটিকর ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের পুর্ব শাপলাবগ এলাকায় জাল দলিল বানিয়ে একজনের জায়গা অন্যজনের কাছে বিক্রি করে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। আর এ কাজে ভূমি অফিসের কতিপয় কর্মকর্তা-কর্মচারী ও স্হানীয় কয়েকজন জড়িত থাকার তথ্য অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে।

জানা যায়, লন্ডন প্রবাসী সুরুজ আলী শাপলাবাগ নিবাসী মুক্তিযোদ্ধা মৃত আব্দুস সালামের কাছ থেকে ১৯৮৯ সালের ১৫ই মার্চ ৩৩৩৯/৮৯ সাব কাবালা দলিল এবং ১১৭০/৮৯ নং নামজারী মুলে জেএল নং- ৯৮ স্হিত, মৌজা- সাদিপুর ২য় খন্ড, সে: জরিপী ১২৯, নামজারী ১২৯/১ খতিয়ানের সে: জরিপী ১৮৫১ নং দাগে সাড়ে ৫ শতক জায়গা খরিদ করেন।

এরপর তিনি ঐ জায়গা ভোগ দখল করা অবস্হায় স্ব-পরিবারে ল্ডন চলে যান। মাঝে মধ্যে তিনি লন্ডন থেকে দেশে আসতেন এবং জায়গার খোজ খবর নিতেন। এমতাবস্হায় লন্ডন প্রবাসী সুরুজ আলী বিগত ২০০৪ সালের ৩রা মার্চ দেশে আসলে জানতে পারেন তাহার খরিদা উল্লেখিত তপশীলের ভুমি আলতাফ মিয়া নামক এক ব্যাক্তি দখল করে নিয়েছেন। এ খবর শুনে সুরুজ আলী তার আত্বীয় ইসলামপুর শ্যামলী আবাসিক এলাকার মুবাশ্বির আলীর ছেলে সাহাব উদ্দিনকে ঘটনাটি জানান। এবং বিষয়টির খোজ খবর নিতে বলেন।

সাহাব উদ্দিন খোজ নিয়ে জানতে পারেন, (১) শাপলাবাগ এলাকার মৃত হাফিজ আব্দুল কাদিরের ছেলে ছাব্বির আহমদ, (২) ছাব্বির আহমদের ভাই, সিলেট জেলা বিএনপির সহ-সাধারন সম্পাদক, টিলাগড় পঞ্চায়েত কমিটির সদস্য, চাঁন্দু শাহ দাখিল মাদ্রাসার সদস্য ছরওয়ার আহমদ, (৩) ছরওয়ার আহমদের স্ত্রী রাজিয়া সুলতানা, (৪) পুর্ব শাপলাবাগের মৃত সোনা মিয়ার ছেলে সিলেট মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক আসাদুজ্জামান আসাদের বড় ভাই মাহবুবুর রহমান মখন উরফে জাল মখন, (৫) টিলাগড় কালাশিল এলাকার ১০ নং বাসার আব্দুল মালিকের ছেলে কাওছার আহমদ, (৬) কল্যানপুরের চেরাগ আলীর স্ত্রী পারভীন বেগম, (৭) সুবিদ বাজার নুরানী ৮৪/৯ নং বাসার মরহুম মৌলভী ছফির উদ্দিনের ছেলে মো: নুরুল হক, (৮) সিলেট সদর নাব-রেজি: অফিসের দলিল লেখক সফিকুর রহমান, (৯) পুর্ব শাপলাবাগের হাজী নাছির উদ্দিনের ছেলে হাফিজ মো: খায়রুল ইসলাম, (১০) হাজী আব্দুর নুর,(১১) কল্যানপুরের মৃত জৈন উল্লা্যহর ছেলে সাহাব উদ্দিনসহ একটি জাল দলিল জালিয়াত চক্র তার খালু শশুর সুরুজ আলীর জায়গা দখল করে রেখেছে। 

জায়গার মুল মালিক লল্ডন প্রবাসী হওয়ায় তিনি কে কিভাবে তার জায়গা দখল করল তা খতিযে দেখার জন্য সাহাব উদ্দিনকে অনুসন্ধান করার জন্য বলেন এবং এ ব্যাপারে আইনী পদক্ষেপ নেয়ার জন্যও বলেন। সাহাব উদ্দিন খোজ নিয়ে জানতে পারেন, দলিল জালিয়াতি চক্র অন্য একজনকে ভুয়া সুরুজ আলী বানিয়ে জায়গার মালিক দেখিয়ে এলাকার মৃত হাফিজ আব্দুল কাদিরের ছেলে ছাব্বির আহমদ ২০০০ সালের ৪ জানুয়ারী সিলেট সদর সাব রেজিষ্ট্রারী অফিসের ১৪১/১৪১/২০০০ ইং সাব কাবালা জাল দলিল নিজ নামে তৈরী করে।

এরপর ছাব্বির আহমদ নিজেই অবৈধ জাল দলিলের বলে অন্যের জায়গার মালিক সেজে কল্যানপুরের চেরাগ আলীর স্ত্রী পারভীন বেগমকে ক্রেতা সাজিয়ে ৩১৭০/২০০১ সালের আরো একটি জাল দলিল মুলে মালিক হয়ে সুবিদ বাজার নুরানী ৮৪/৯ নং বাসার মরহুম মৌলভী ছফির উদ্দিনের ছেলে মো: নুরুল হকের কাছে ১২৬৬০/২০০১ নং জাল দলিল মুলে জায়গাটি বিক্রয় করেন।

এমনভাবে মো: নুরুল হকও নিজে মালিক না হয়েও জাল দলিলে জায়গা কিনে ৯৪৫২ নং দলিল মুলে সিলেট সদর নাব-রেজি: অফিসের দলিল লেখক সফিকুর রহমানের কাছে বিক্রি করেন। এভাবে পরবর্তীতে সফিকুর রহমানও পুর্ব শাপলাবাগের হাজী নাছির উদ্দিনের ছেলে হাফিজ মো: খায়রুল ইসলামের নিকট একইভাবে জায়গাটি বিক্রি করে দেন। স্হানীয় সুত্র থেকে জানা যায়, ১ থেকে ৯ নং ব্যাক্তিদ্বয় একই পরিবারভুক্ত লোক। একে অন্যের সহযোগীতায় বিভিন্নভাবে জাল দলিল তৈরী করে লোকজনের জায়গা হাতিয়ে নিচ্ছে। চলবে…………………….  

পুর্ব শাপলাবাগে জাল দলিলে জায়গা বিক্রির আগের সংবাদ পড়তে এখানে ক্লিক করুন   

(Visited 1 times, 1 visits today)

NO COMMENTS

Leave a Reply