যে ৬টি ফলের রস স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী

0
211

সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: ফলের রস স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারী। অনেকেই সকালের নাস্তায় ফলের রস পান করে থাকেন। বাইরের প্যাকেটজাত ফলের রসের পরিবর্তে ঘরে তৈরি করা ফলের রস বেশি নিরাপদ এবং স্বাস্থ্যকর।

তবে ভাল ফল পেতে এতে চিনি মেশানো থেকে বিরত থাকুন। কিছু ফলের রস যা প্রতিদিন পান করা উচিত। এমন কিছু স্বাস্থ্যকর ফলের রস নিয়ে আজকের এই ফিচার।

গাজর, আদা এবং আপেল:- অনেকে শুধু গাজর অথবা আপেল রস পান করে থাকেন। এর পরিবর্তে গাজর, আদা এবং আপেলের একসাথে মিশিয়ে পান করুন। এটি কমপক্ষে সপ্তাহে একবার পান করুন।

শসা এবং আপেল:- একটি বা দুটি শসা এবং একটি ছোট আকৃতির আপেল একসাথে মিশিয়ে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে নিন। শসাতে ৯০% পানি। এটি প্রাকৃতিকভাবে শরীর হাইড্রেইড এবং ঠান্ডা করে থাকে। এছাড়া শসাতে ম্যাগনেসিয়াম, পটাশিয়াম এবং স্যালিকা আছে যা ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতেও সাহায্য করে।

গাজর, পালং শাক এবং আপেল:- দুটি গাজর, দুই কাপ পালং শাক, একটি আপেল, একটি শসা এবং এক ইঞ্চি আদা কুচি দিয়ে ফলের রস তৈরি করে নিন। গাজর ভিটামিন এ, সি, ডি এবং ফলিক অ্যাসিড রয়েছে। এছাড়া এতে রয়েছে পটাশিয়াম, সোডিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম এবং কপার। এর অ্যান্টি অক্সিডেন্ট উপাদান ত্বকে ব্রণ হওয়ার প্রবণতা হ্রাস করে।

জাম্বুরার রস:- অর্ধেকটা জাম্বুরার রস, আধা কাপ ব্লুবেরিস এবং আধা কাপ ঠান্ডা গ্রিন টি একসাথে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে রস তৈরি করে নিন। এটি আমাদের মেটাবলিজমকে ধীরে করে থাকে। এবং কাজের শক্তি প্রদান করে।

আনারস, আপেল এবং তরমুজ:- তরমুজ, আনারস এবং আপেল একসাথে ব্লেন্ডারে রস তৈরি করে নিন। এটি শরীর থেকে অতিরিক্ত পানি বের করে দিতে সাহায্য করে।

করলা,কলা এবং দুধ:- করলা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। কিন্তু এর তেতো স্বাদের জন্য অনেকেই করলা খেতে পারেন না। তারা করলা, কলা এবং দুধ একসাথে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে রস করে নিতে পারেন। এতে করলার তেতো ভাব অনেকটা কেটে যাবে। অতিরিক্ত গরমও কাটাতে সাহায্য করবে এটি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here