আইনের তোয়াক্কা না করে পিরেরবাজারে চলছে সিএনজি ব্যবসা

0
975

সিলেটের সংবাদ ডটকম: বিকাল ৫টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত সকল সিএনজি (গ্যাস) পাম্প বন্ধ থাকার আইন থাকলেও তা মানছেনা সিলেট পিরেরবাজারের মেসার্স আর রহমান এন্ড সন্স ফিলিং স্টেশন নামক একটি পেট্রোল ও সিএনজি পাম্প। এক শ্রেণীর অসাধু কর্মকর্তা ও কয়েকজন নেতাকে ম্যানেজ করে চলছে তার ব্যবসা।

জানা যায়, বাংলাদেশের সবকটি জেলার মতো সিলেটেও বিকেল ৫টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত সিএনজি পাম্পগুলো বন্ধ থাকার বিধান রয়েছে। কিন্তু একমাত্র আর রহমান এন্ড সন্স ফিলিং স্টেশন কর্তৃপক্ষ সে আইন না মেনে ঐ সময় ব্যবসা করে যাচ্ছে। সামনে বন্ধ সম্বলিত একটি সাইনবোর্ড রেখে ভিতরে চলে তাদের গ্যাস বিক্রি।

স্হানীয় কয়েকটি নির্ভরযোগ্য সুত্র থেকে জানা যায়, জালালাবাদ গ্যাস কর্তৃপক্ষের কিছু অসাধু কর্তা ও সিলেট জেলা ও মহানগরের কয়েকজন আওয়ামীলীগ নেতাদের প্রতি মাসে উৎকোচ দিয়ে মেসার্স আর রহমান এন্ড সন্স ফিলিং স্টেশনের মালিক মানিক মিয়া ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন। সিলেট নগরীর টিলাগড় ভাটাটিকর এলাকার বাসিন্দা মানিক মিয়া একজন মুক্তিযোদ্ধা বলে জানা গেছে!

বিকেল ৫টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত এই ফিলিং স্টেশনে সিএনজি (গ্যাস) সরবরাহের কারনে অত্র এলাকার বাসা-বাড়ির গ্যাসে দেখা দেয় জটিলতা। সুত্র থেকে জানা যায়, তিনি আওয়ামীলীগ নেতাদের ও নিজে মুক্তিযোদ্ধা পরিচয়ে তার এ ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন।যার কারনে ভয়ে কেউই কিছু বলার সাহস পায়না। নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকটি সিএনজি (গ্যাস) ফিলিং স্টেশনের মালিক জানান, আমরা সবাই বিকেল ৫টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত আমাদের স্টেশনে সিএনজি (গ্যাস) বিক্রি বন্ধ রাখলেও মানিক মিয়া তা করছেন না। তিনি নিজেকে একজন মুক্তিযোদ্ধা পরিচয় দিয়ে এবং কয়েকজন নেতার নাম ভাঙ্গিয়ে অবৈধভাবে ঐ সময়টুকুতে ব্যবসা করে যাচ্ছেন।

এ ব্যাপারে মেসার্স আর রহমান এন্ড সন্স ফিলিং স্টেশনের মালিক মানিক মিয়ার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ব্যাস্হ আছেন পরে কথা বলবেন বলে জানান। কিন্তু পরবর্তীতে তার মোবাইলে বার বার ফোন দিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। পরে তার চাচাতো ভাই পরিচয় দিয়ে একজন জানান, বিকেলে তাদের সিএনজি স্টেশনে (গ্যাস) বিক্রি করা হয়না।

এদিকে জালালাবাদ গ্যাস টি অ্যান্ড সিস্টেমের ইঞ্জিনিয়ার শাহিনুর ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমরা ঘটনাটি তদন্ত করে যদি সত্যতা পাই তাহলে ব্যবস্হা গ্রহন করব। মেসার্স আর রহমান এন্ড সন্স ফিলিং স্টেশন থেকে কোন উৎকোচ গ্রহন করা হয় নাকি এমন প্রশ্ন করলে তিনি হেসে এড়িয়ে যান। এমনকি কেন আর রহমান এন্ড সন্স ফিলিং স্টেশনের বিরুদ্ধে ব্যবস্হা নেয়া হচ্ছেনা জানতে চাইলে তিনি কোন সঠিক উত্তর দিতে পারেন নাই।

(Visited 13 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here