জৈন্তাপুরে দাদন ব্যবসায়ী কুতুব আলীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দুর্নিতি দমন কমিশনে

0
198

শোয়েব উদ্দিন, (জৈন্তাপুর): সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার দাদন (সুদ) ব্যবসায়ী কুতুব আলীর বিরুদ্ধে নির্যাতীতরা দুর্নিতি দমন কমিশন সিলেট ও ঢাকায় অভিযোগ করেছে। তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানিয়েছেন ইউপি সদস্য, ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের।

অভিযোগ ও এলাকাবাসী জানাযায়- জৈন্তাপুর উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের ডাইয়া গ্রামের দাদন (সুদ) ব্যবসায়ী মৃত ইসরাক আলীর ছেলে কুতুব আলী দীর্ঘ ২যুগের অধিক সময় হতে এলাকায় দাদন (সুদ) ব্যবসা চালিয়ে আসছে। অসহায় মানুষের দূর্বলতাকে কাজে লাগিয়ে সে দাদন (সুদ) ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।

নানান ফাঁদে ফেলে টাকা পয়সা জমি জামা হাতিয়ে নেওয়া এই সুধ ব্যবসায়ীর ধর্ম। তার কাছে নিঃস্ব হয়ে কয়েকটি পরিবার বাড়ী ছাড়া রয়েছে। এলাকায় জনপ্রিয় ব্যাংক হিসাবে নাম ডাক রয়েছে কুতুব আলী ব্যাংক।

কতিত রয়েছে কুতুব আলীর হিসাব দিতে নাকি দরবস্তের পূবালী ব্যাংকের এক সপ্তাহ সময় লাগে, এছাড়া পূবালী ব্যাংক দরবস্ত শাখা ব্যবস্থাপকরা কাস্টামারদের চাহিত টাকা অনেক সময় পরিশেধে করতে হলে কুতুব আলীর নিকট যেতে হয় এমনটাই এলাকাবাসীর দাবী। তার গৃহে ও দোকানে নগদ কোটি টাকার উপরে সর্বক্ষণ মজুত থাকে।

যে কোন মুহুত্বে সে যে কোন পরিমান টাকা দাদন (সুদ) লগ্নী দিতে পারে। উপজেলা জুড়ে তার একটি নেটওয়ার্ক বাহিনী রয়েছে এবং সখ্যতা রয়েছে প্রভাবশালীদের সাথেও।

অবশেষে নির্যাতনে শিকার হয়ে দূর্নিতি দমন কমিশন ঢাকা এবং সিলেট অফিসে গত ১৫ মার্চ ২০১৭ ইং তারিখে দরবস্ত ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড এর ইউপি সদস্য মোঃ নুর মিয়া, দরবস্ত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বাহারুল আলম বাহার এবং জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ জয়নাল আবেদীন এর সুপারিশ সহ লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের রনিফৌদ গ্রামের মৃত হাজি আজিজুর রহমানের ছেলে মোঃ সামসুল ইসলাম, মোঃ নুরুল ইসলাম, নিজপাট ইউনিয়নের হেলিরাই গ্রামের মৃত মোহাম্মদ আলীর ছেলে মতিউর রহমান, দরবস্ত ইউনিয়নের তেলিজুরী গ্রামের মৃত হাজী নজরুল ইসলামের ছেলে বদরুল আমিন, গোয়াইনঘাট উপজেলার আলীরগাঁও ইউনিয়নের ধর্মগ্রামের মৃত তজম্মুল আলীর ছেলে মোঃ সালেহ রাজা, হাজরাই গ্রামের মৃত ওসমান ডাক্তারের ছেলে মোঃ এখলাছুর রহমান।

অভিযোগে আরও উল্লেখ করেন দাদন (সুদ) ব্যবসায়ী কুতুব আলী নিরিহ লোকজনের নিকট হতে ৩শত টাকার নন জুডিশিয়াল সাদা ষ্টাম্পে স্বাক্ষর রেখে এবং সাদা ব্যাংক চেক স্বাক্ষর রেখে চড়া সুদে টাকা লগ্নি দিয়ে বিভিন্ন ভাবে লোকজনদের হয়রানী অভিযোগ রয়েছে। অপরদিকে টাকা পরিশোধ করার পরও তাদের ষ্টাম্প ও চেক ফেরত না দিয়ে নিজের কাছে রেখে দেয়।

পরবর্তীতে সময় সুযোগ বুঝে কুতুব আলী এসকল ব্যাক্তিদের সাদা চেকের উপর নিজের ইচ্ছা মাফিক টাকার অংক বসিয়ে চেক ডিজনার করে আদালতে মামলা দিয়ে তাদেরকে হয়রানী করছে বলে অভিযোগকারীরা তাদের অভিযোগে উল্লেখ করে। এলাকার নিরিহ জনসাধারণ সহ আবেদনকারীরা দাদন (সুদ) ব্যবসায়ীর হাত থেকে রেহাই পেতে আইনের সহযোগিতা চান।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ১নং ওয়ার্ড এর ইউপি সদস্য মোঃ নুর মিয়া, দরবস্ত ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বাহারুল আলম বাহার ও জৈন্তাপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ জয়নাল আবেদীন প্রতিবেদক কে জানান তারা ভোক্তভোগিদের আবেদনে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সংশ্লিষ্ট দুদক চোয়রম্যানের নিকট সুপারিশ করেছেন।

(Visited 5 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here