সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: মাইগ্রেন নিয়ে সমস্যায় ভোগেন অনেকেই। মাথার ভেতরের রক্তচলাচলের তারতম্যের কারণে মাইগ্রেন হয়।

রক্ত চলাচল কমে গেলে হঠাৎ করে চোখে সব অন্ধকার দেখা যায়, এবং পরবর্তীতে রক্ত চলাচল হঠাৎ বেড়ে গিয়ে প্রচণ্ড মাথাব্যথার অনুভূতি তৈরি হয়। চকোলেট, পনির, কফি ইত্যাদি খাবার, জন্ম বিরতীকরণ ওষুধ, দুঃচিন্তা, অতিরিক্ত ভ্রমণ, ব্যায়াম ইত্যাদির কারণে এই রোগের সূচনা হতে পারে।

যাদের মাইগ্রেন আছে, তাদের অন্তত দৈনিক ৮ ঘন্টা ঘুম আবশ্যক। অতিরিক্ত বা কম আলোতে কাজ করা থেকে বিরত থাকতে হবে। কড়া রোদ বা তীব্র ঠাণ্ডা পরিহার করতে হবে। উচ্চশব্দ ও কোলাহলপূর্ণ পরিবেশে বেশিক্ষণ থাকবেন না। বেশি সময় ধরে কম্পিউটারের মনিটর ও টিভির সামনে থাকবেন না।

কফি, চকলেট, পনির, আইসক্রীম, মদ ইত্যাদি বর্জন করা উচিত। অধিক সময় না খেয়ে থাকা যাবে না। পরিশ্রম, মানসিক চাপ এবং দীর্ঘ ভ্রমণ বর্জনের মাধ্যমে মাইগ্রেনের আক্রমণ অনেকাংশে কমিয়ে আনা সম্ভব। ম্যাগনেশিয়াম সমৃদ্ধ খাবার, যেমন- ঢেকিছাঁটা চালের ভাত ও এ চালের বিভিন্ন পদ, আলু ও বার্লি মাইগ্রেন প্রতিরোধক।

বিভিন্ন ফল বিশেষ করে খেজুর ও ডুমুর ব্যথা উপশম করে। সবুজ, হলুদ ও কমলা রঙের শাকসবজি নিয়মিত খেলে উপকার হয়। পানি, হার্বাল টি; হার্বাল টির মধ্যে বেছে নিতে পারেন গ্রিন টি। ক্যালশিয়াম ও ভিটামিন ডি মাইগ্রেন প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। তিল, আটা ও বিট ইত্যাদিতে প্রচুর পরিমান ক্যালশিয়াম রয়েছে। আদার টুকরো বা রস দিনে ২ বার পানিতে মিশিয়ে খেতে পারেন।

NO COMMENTS

Leave a Reply