নবীগঞ্জে ভাইকে খুন করে দাফন করার জন্য কবর খোঁড়ার অভিযোগে দু’ভাই আটক

0
277

সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: নবীগঞ্জ পৌর এলাকার শহরতলীর পূর্ব তিমিরপুর গ্রামের আপন ছোট ভাইকে খুন করে দাফন করা জন্য দুটি কবর কুড়ে রাখার অভিযোগে দু’সহদোরকর আটক করেছে পুলিশ। রোববার সকালে তাদের আটক করে কোর্টের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করে পুলিশ।

এ ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় চলছে। কবর দেখার জন্য ওই বাড়ির সামনে জনতার উপচে পড়া ভীড়। এ ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় চলছে।

জানা যায়, ওই গ্রামের মৃত উকিল উল্লার দুই পুত্র আব্দুস সালাম ও ফারুকের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে পিতার রেখে যাওয়া বাড়ির ভাগ ভাটোয়ার নিয়ে দুই সহদোরের মধ্যে ঝগড়া বিবাদ চলছিল। গত দুই দিন ধরে এই বিরোধ চরম আকার ধারন করে।

এ নিয়ে দুই ভাইয়ের মধ্যে একাধিকবার সংঘর্ষে ঘটনা ঘটেছে। তাদের বিরোধ নিয়ে সামাজিক বিচার বৈঠকে কোন সুরাহা দিতে পারেননি শালিস বৈঠকের লোকজন। অনেক সময় সালিশ বৈঠকের উপস্থিতিতে দুই ভাই সংঘর্ষে লিপ্ত হয়ে পড়েন।

শালিস ও বিচার ব্যবস্থ্যার কোন সুরাহা না পেয়ে রাগে অভিমানে বড় ভাই আব্দুস সালাম গত শুক্রবার রাতে ছোট ভাই ফারুককে খুন করে দাফন করার জন্য বাড়ি সামনে প্রথমে একটি কবর কুড়ে রাখেন বলে অভিযোগ উঠে। এমনকি সে বাড়ির লোকজনকে ফারুককে খুন করে দাফন করবে বলে হুমকি দিয়ে বেড়াচ্ছিল বলেও অভিযোগে প্রকাশ।

এ খবর শুনে উকিল মিয়ার স্ত্রী মাসুক বিবি স্থানীয় লোকজন কে বিষয়টি অবহিত করেন। স্থানীয় লোকজন সালামকে এই বিষয় মন থেকে বাদ দেওয়ার জন্য বুঝাতে চেষ্টা করেন। সালাম এতে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে শনিবার সকালে ওই কবরের পাশে আরো একটি কবর কুড়ে রাখেন।

সালাম ও ফারুকের মা আরো ভয় পেয়ে রবিবার সকালে নবীগঞ্জ থানা পুলিশকে জানালে থানার ওসি অাতাউর রহমানের নির্দেশে পুলিশের এস আই মলাই মিয়া ও এ এস আই আক্তারুজ্জামানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দুই সহদোর সালাম (৪২) ও ফারুক (৩৮) কে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন। রবিবার দুপুরে আটককৃত দুই সহদোরকে হবিগঞ্জ কোর্টে প্রেরন করে। ঠিক সময়ে তাদের আটক না করলে বড় ধরনের দুর্ঘটনা সংঘটিত হতো বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

(Visited 2 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here