ম্যানচেস্টারে আত্মঘাতী হামলা : এ পর্যন্ত নিহত ২২

0
175

সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: যুক্তরাজ্যের ম্যানচেস্টারে আত্মঘাতী হামলায় ২২ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ৫৯ জন। স্থানীয় সময় গতকাল সোমবার রাত ১০টা ৩৫ মিনিটে ম্যানচেস্টারের একটি ইনডোর স্টেডিয়ামে মার্কিন পপতারকা অ্যারিয়ানা গ্রান্ডের কনসার্ট শেষে এই বিস্ফোরণ ঘটে।

বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, হামলার দায় এখন পর্যন্ত কেউ স্বীকার করেনি। পুলিশ বলছে, এক ব্যক্তি এই হামলা চালিয়েছেন। তিনি বিস্ফোরক বহন করছিলেন। একপর্যায়ে তিনি বিস্ফোরণ ঘটান।

ওই হামলাকারীও নিহত হয়েছেন। হামলাকারী এককভাবে নাকি কোনো গোষ্ঠীর সদস্য হিসেবে এই হামলা চালিয়েছেন, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। দ্রুতগতিতে তদন্ত চলছে। যুক্তরাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাম্বার রুড এই ঘটনাকে ‘বর্বর হামলা’ বলে উল্লেখ করেছেন।  হামলার ঘটনার পর দেশটির রাজনৈতিক দলগুলো আসন্ন সাধারণ নির্বাচনের প্রচারাভিযান স্থগিত করেছে।

যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে সরকারের জরুরি কোবরা কমিটির সঙ্গে বৈঠক করছেন। ঘটনার পরপরই থেরেসা মে বলেন, এই বিস্ফোরণকে তাঁরা ভয়ংকর সন্ত্রাসী হামলা হিসেবে বিবেচনা করছেন। ম্যানচেস্টারে ঠিক কী ঘটেছে, তার বিস্তারিত জানতে কাজ চলছে। বিস্ফোরণের ঘটনায় ভুক্তভোগীদের পাশে আছেন তিনি।

বিরোধী দল লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন এক টুইট বার্তায় এই বিস্ফোরণকে ‘ভয়াবহ’ বলে বর্ণনা করেছেন। ভুক্তভোগীদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন তিনি। প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য, ২১ হাজার দর্শক ধারণক্ষমতার ইনডোর স্টেডিয়ামটিতে অ্যারিয়ানা সংগীত পরিবেশন করেন। অ্যারিয়ানা কনসার্ট শেষ করে মঞ্চ ত্যাগ করার পরপরই বিস্ফোরণ ঘটে।

২৩ বছর বয়সী অ্যারিয়ানা গ্রান্ডে অক্ষত আছেন। তাঁর মুখপাত্র এ কথা জানিয়েছেন। পরে টুইটারে গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছেন অ্যারিয়ানা। বিস্ফোরণের পর আতঙ্কিত লোকজন ছুটোছুটি করতে থাকেন। তাঁদের ব্যাপক চিৎকার-চেঁচামেচিতে পুরো এলাকায় বিশৃঙ্খল ও ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিতে অন্তত ৬০টি অ্যাম্বুলেন্স কাজ করে।

শহরের ছয়টি হাসপাতালে আহত ব্যক্তিদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। যুক্তরাজ্যের পরিবহন পুলিশ বলছে, কনসার্ট শেষ হতে না হতেই ইনডোর স্টেডিয়ামের প্রবেশ কক্ষে এই বিস্ফোরণ ঘটে। ঘটনার কিছু পরেই ইনডোর স্টেডিয়ামের কাছের ভিক্টোরিয়া রেলস্টেশন বন্ধ করে দেওয়া হয়। সব ট্রেনের যাত্রা বাতিল করা হয়।

অ্যান্ডি হলি নামের এক প্রত্যক্ষদর্শীর ভাষ্য, তাঁর স্ত্রী ও মেয়ে ওই কনসার্টে গিয়েছিলেন। তাঁদের আনতে গিয়ে অপেক্ষায় ছিলেন তিনি। হঠাৎ করেই ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটে। বিস্ফোরণে বেশ কিছুটা দূরে ছিটকে পড়েন তিনি। পরে উঠে দেখতে পান, রক্তাক্ত লোকজন পড়ে আছেন। মানুষজনের মধ্যে স্ত্রী-কন্যাকে খুঁজতে থাকেন তিনি। তাঁদের না পেয়ে পুলিশের কাছে যান। শেষ পর্যন্ত স্ত্রী-কন্যাকে খুঁজে পান। তাঁরা ভালো আছেন।

(Visited 2 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here