দক্ষিণ সুরমার লাউয়াইয়ে স্ত্রী’কে জবাই করে হত্যা : স্বামী পলাতক

0
647

সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: সিলেটের দক্ষিণ সুরমার লউয়াই গ্রামে নিজ স্ত্রীকে গলাকেটে হত্যা করেছে এক পাষান্ড স্বামী। সোমবার বেলা ১টার দিকে লাউয়াই গ্রামের উম্মরকুবলে এ ঘটনাটি ঘটে।

নিহত শাহেনা বেগম (২৮) সে লাউয়াই উম্মরকবুল গ্রামের মছব্বির আলী মেয়ে। এ ঘটনার পর পাষান্ড স্বামী মনির আলী পলাতক রয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে ওসমানী হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করেছে।

তবে কি কারনে শাহেনা’কে হত্যা করা হয়েছে, এর আসল ঘটনা জানা না গেলেও প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক কলহের জের ধরে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, ঘাতক ষ্বামী মনির আলী বিশ্বনাথ উপজেলার নাজির বাজার এলাকার রাজাপুর গ্রামের মৃত ওয়ারিছ আলীর ছেলে।

গত পাঁচ বছর আগে দক্ষিণ সুরমার লাউয়াই উম্মর কবুল গ্রামের মছব্বির আলীর মেয়েকে বিয়ে করে ঘরজামাই হিসেবে বসবাস করে আসছে। পেশা গত দিক দিয়ে সে কাঠমিস্ত্রীর কাজ করে অর্থ উপার্জন করতো। পারিবারিক জীবনে তাদের এক মেয়ে সন্তান রয়েছে। পরিবারে স্ত্রী শাহেনা ও তার ছোট বোনদের সাথে বিভিন্ন বিষয়ে স্বামী মনিরের প্রায়ই মন-মালিন্যতা দেখা দিতো।

বিশেষ করে গত ১০/১২ দিন ধরে শাহেনা বেগমের সাথে স্বামী মনির আলীর বিরোধ চলে আসছিলো। এ সময়ের মধ্যে উভয়কে উত্তেজিত হতে দেখা যায়। তবে এ উত্তেজনা ও বিরোধের পিছনে আসল ঘটনা কি ছিলো, তা এখনো জানা যায় নি। স্বামী-স্ত্রীর ঐ বিরোধ নিয়ে উভয়ের মধ্যে চাপা ক্ষোভ আর অসন্তুষ্টি বিরাজ করছিলো।

আর এ ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটে সোমবার বেলা ১টায়। নিহত শাহেনার ভাই ও মা জানান, ঘরের লোকজন বাইরে ছিলেন। আমরারও প্রয়োজনীয় কাজে পার্শ্ববর্তী বাড়িতে ছিলাম। ঘরে শুধুমাত্র আমার মেয়ে, মেয়ের জামাই ও পাঁচ বছরের একমাত্র নাতিন ফাইজা বেগম ছিলো। বাড়িতে আসার পরপরই নাতিন ফাইজা বেগম চিৎকার করে বলে ‘নানি বাবা আমার মা’কে জবাই করে হত্যা করে চলে গেছেন।

তখন নিহত শাহেনার মা বাথরুমে গিয়ে দেখতে পান সত্যিই তার মেয়েকে জবাই করে হত্যা করা হয়েছে। আর্তচিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে দেখতে পেয়ে দক্ষিণ সুরমা থানা পুলিশকে অবগত করেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে লাশটি উদ্ধার করে ওসমানী হাসপাতালে প্রেরণ করেছে।

এ ব্যাপারে দক্ষিণ সুরমা থানার অফিসার ইনচার্জ হারুন বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার ও সুরতহাল রিপোর্ট তৈরী করেছে। ওসমানী হাসপাতাল মর্গে লাশ প্রেরন করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। স্বামী মনির আলী পলাতক রয়েছে। গ্রেফতারে অভিযান চলছে। সে গ্রেফতার হলে হত্যাকান্ডের আসল ঘটনা বের হয়ে আসবে।

(Visited 23 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here