হেলেন-কয়েছের বিরুদ্ধে এবার প্রবাসী কয়ছরের অভিযোগ

0
173

সিলেটের সংবাদ ডটকম: সিলেটের আলোচিত আহমদ হাউজিং কোম্পানির মালিক হেলেন আহমদ ও তার ম্যানেজার মিছবাউল ইসলাম কয়েছের বিরুদ্ধে এবার অভিযোগ করেছেন প্রবাসী সিআইপি কয়ছর আহমদ।

তিনি অভিযোগ করেছেন, সিলেটে তার প্রতিষ্ঠিত ব্রিটিশ গ্যাস কুকার কোম্পানিটি দখল নিতে হেলেন-কয়েছ একের পর এক মামলা দিয়ে হয়রানি করছেন। এমনকি তার কাছ থেকে বিনিয়োগের নামে হাতিয়ে নেওয়া ১ কোটি ৪১ লাখ টাকাও ফেরত দিচ্ছেন না।

তাদের জুলুম ও হয়রানির কারণে তিনি ও তার কোম্পানি ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। মঙ্গলবার সিলেট জেলা প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তার পক্ষে লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন কোম্পানির সহকারি ম্যানেজার মাহি খান ও মনিরুল হক। তারা জানান, ওই চক্রের কারণে তারা ব্যবসা করতে পারছেন না।

সিলেটের বালাগঞ্জের বাসিন্দা, লন্ডন প্রবাসী ও তিনবারের সিআইপি কয়ছর আহমদের পক্ষে লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করেন, ‘‘বিসিক খাদিমনগরে ‘দ্য ব্রিটিশ গ্যাস কুকার কোম্পানি বাই সিলেট’ গড়ে তুলে ব্যবসা করে আসছেন। যা থেকে একযুগেরও বেশি সময় ধরে কোটি কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা আয় হচ্ছে। ৬৫ জনের মতো শ্রমিক কাজ করছে কোম্পানিতে।

কিন্তু কোম্পানির প্রতি কুনজর পড়ে ভূমি জালিয়াত ও দখলবাজ হেলেন আহমদ ও তার সহযোগী কয়েছের। তারা কোম্পানির দখল নিতে একের পর এক মামলা করছে। অনেক মামলা ইতোমধ্যে ফাইনাল রিপোর্ট দিয়েছে পুলিশ। এমনকি বাদির বিরুদ্ধে ২১১ ধারায় মামলাও হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে সহকারি ম্যানেজার মাহি খান বলেন, ‘২০১০ সালে ব্যবসার কথা বলে হেলেন ১ কোটি ৪১ লাখ টাকা নিয়েছিলেন কয়ছর আহমদের কাছ থেকে।

সেই টাকা না দিয়ে উল্টো মিথ্যা মামলা দিয়ে যাচ্ছেন হেলেন-কয়েছ। ইতোমধ্যে ১৫/২০টির মতো মামলা ও অভিযোগ দিয়েছেন তারা। এরমধ্যে  ৫ কোটি টাকার চাদাবাজি মামলাও রয়েছে। যদিও পুলিশ এর সত্যতা খুজে পায়নি। লিখিত বক্তব্যে আরও বলা হয়,  ‘হেলেন তার স্বামীর মৃত্যুর পর কয়েছকে সাথী করে জাল জালিয়াতির মাধ্যমে বিভিন্ন জনের জায়গা দখল করে আসছেন।

ফলে গোলাপগঞ্জের বসন্তপুরের দরিদ্র পরিবারের সন্তান কয়েছও আজ কোটি কোটি টাকার মালিক। বিভিন্ন জনের জায়গা দখল ও হয়রানির পর এবার তারা প্রবাসীদের পিছু লেগেছে। এরকম হলে কোনো প্রবাসী সিলেট তথা দেশে এসে বিনোযোগ করবে না। হেলেন-কয়েছদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি করেছেন সিআইপি কয়ছর আহমদ।

এদিকে, হেলেন আহমদ ও মিছবাউল ইসলাম কয়েছ জানান, সংবাদ সম্মেলনে তাদের বিরুদ্ধে উত্থাপতি অভিযোগ সত্য নয়। সংবাদ সম্মেলনে যে সব মামলা ও জিডির বরাত দেওয়া হয়েছে, এসব তাদের পক্ষ থেকে করা হয়নি। তাদের অভিযোগ, প্রবাসী কয়ছর ব্যবসার জন্য পাঁচ কোটি টাকা চেয়েছিলেন,। টাকা না দেওয়ায় এই অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।

(Visited 5 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here