নিখোঁজ দিনারের নকল ভাই আবিস্কার

0
439

সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: প্রায় ৫ বছরেরও বেশি সময় নিখোঁজ থাকা সিলেট জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি ইফতেখার আহমদ দিনারের সন্ধান দাবিতে পরিবার যখন দিশেহারা।তখনি মিলেছে দিনারের নকল খালাতো ভাইয়ের।

এডভোকেট সালেহ আহমদ চৌধুরী নামের ওই ব্যক্তিটি প্রতারণার মাধ্যমে দিনারের নকল খালাতো ভাই সেজে বিভিন্ন সময় কেন্দ্রীয় বিএনপির অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন। বর্তমানে তিনি নিজে জেলা ছাএদলের সহ সাংগঠনিক সম্পাদক।

একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে,অতীতে শিবিরের রাজনীতির সাথে জড়িত থাকা সালেহ চৌধুরী মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে ছাত্রদলের পদ বাগিয়ে নিয়েছেন। গত কয়েকদিন আগে দেশব্যাপী বিএনপির বিগত দিনের আন্দোলন সংগ্রামে নিহত ও নিখোঁজের স্বজনদের সম্মানে রাজধানীতে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটি আয়োজন করে ইফতার ও দোয়া মাহফিল।

সেখানে সারাদেশ থেকে নিখোঁজ ও নিহতদের আত্মীয়-স্বজনরা যোগ দেন। ওই অায়োজনে দলটির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকেন। স্বজনদের হাতে তুলে দেওয়া হয় উপহার সামগ্রীও।

সেখানে উপস্থিত হয় প্রতারক সালেহ চৌধুরি আর তখনি তাকে দেখে চিনে ফেলেন ইলিয়াস পত্নী লুনা তিনি নিখোঁজ ছাএনেতা দিনারের পরিবার কে বিষয়টি অবহিত করলে তাঁরা ঢাকায় অবস্থানরত কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা শহীদুল ইসলাম বাবুলের কাছে ফোন করলে তিনি সালেহ চৌধুীরি কে ঢাকায় কৌশলে আটকের চেষ্টা করলে সেখান থেকে সে সটকে পড়ে।

এদিকে আর কনো উপায় না দেখে নিখোঁজ দিনারের বোন জেলা বিএনপি নেত্রী ও জাতীয়বাদী মহিলা দলে জেলা শাখার সহ-সভাপতি তাহসিন শারমীন তামান্না ফেসবুকে একটি ছবি সহ পোস্ট করেন সেখানে তিনি বলেন, “আমি বিস্মিত আমি হতবাক। একটা মানুষ কি করে এতোটা লোভী আর ছোট মনের হতে পারে ? শ্রদ্ধেয় লুনা ভাবীর সন্দেহ হওয়ায় আমাকে বিষয়টি তিনি অবহিত করেন।

সে নাকি প্রতিবার দিনার ভাইয়ের খালাতো ভাই বলে সব প্রগ্রামে ঢাকায় যায় এবং সব রকমের ফ্যাসিলিটিস হাতিয়ে নেয়। ভাবী গত বৎসর তাকে নোটিশ করেছেন। ভেবেছেন সত্যি হয়তো সে আমাদের আত্মীয়, তাকে আমরা পাঠিয়েছি। কিন্তু গতকালকের প্রগ্রামে সে যখন ইফতেখার আহমদ দিনারের পরিবারের সদস্য হিসাবে ম্যাডামের সামনে গিয়ে কথা বলে গিফট নিয়ে আসে তখন লুনা ভাবী তাকে জিগ্যেস করেন সে কেমন ভাই।

তখন সে ভাবীকে উত্তর দেয় সে আমাদের খালাতো ভাই নাম সালেহ আর আমরা তাকে পাঠিয়েছি। অথচ এই প্রগ্রাম সম্পর্কে আমরা অবগত নই এবং তাকে আমরা চিনি না। খুব দুঃখ পেলাম এই লোকটার এমন আচরণে। সে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের জন্য আমার ভাইকে আমাদেরকে বিক্রি করতে তার বিন্দু মাত্র দ্বিধা হয়নি।

আমার কাছে সবচেয়ে বড় প্রশ্ন হচ্ছে সে কি করে ঐ প্রগ্রামগুলোর দাওয়াত পায় যা আমরা পাই না। কে তাকে এই ব্যাপারে সাহায্য করে, সে নিশ্চয় আমাদের শুভাকাংখী হতে পারেনা ? আমি কেন্দ্রীয় বি এন পি সিলেট বি এন পির উর্ধতন নেত্রীবৃন্দের কাছে এই লোকটার দৃস্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করছি যাতে ভবিষ্যতে আর কোন লোভী মানুষ অন্য কোন নির্যাতিত পরিবারকে ঠকিয়ে ফায়দা হাসিল করতে না পারে।

নিম্নে তার আই ডি থেকে ছবি দিলাম ” এই লেখাটি ফেসবুকে দেওয়ার পর পরই সমালোচনার ঝড় উঠে। দেশে বিদেশে থাকা সাবেক বিএনপি ছাত্রদল নেতৃবৃন্দ নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়েছেন,প্রবাসে অবস্থানরত সাবেক ছাত্রনেতা আব্দুস সাত্তার বাবু তাঁর নিজ ফেসবুক আইডিতে লিখেন “ তামান্নার স্ট্যাটাস দেখে খুব খারাপ লাগল।

আচ্ছা দিনারের খালাতো ভাই পরিচয় দিয়ে একজন এডভোকেট খালেদা জিয়ার গুম হয়ে যাওয়া পরিবার নিয়ে অনুষ্ঠানের দাওয়াত ও উপহার সামগ্রী গ্রহণ করেন প্রতিবার, অথচ দিনারের পরিবার কেউ কিছু জানে না। আজ যদি লুনা ভাবি(ইলিয়াস পত্নী) বিষয়টি না ধরতেন ও সেই এডভোকেটকে চার্জ না করতেন তাহলে হয়ত একটি গুম পরিবারের নাম ব্যাবহার করে সুযোগ প্রতিনিয়ত নেয়া হতো। আসলে লেখাপড়া(!) করেও কিছু মানুষ তার আচার আচরণ ও ব্যাবহার কখনও মার্জিত করতে পারে না।

আমার ছাত্রদলের ভাইরা,আমরা দেশে নেই বলে কি তোমরা এই ঘটনার একটি বিহিত করতে পারবা না? এদিকে অপর একটি সূত্র জানিয়েছে,নিখোঁজ দিনারের পরিচয় দানকারী খালাতো ভাই আসলে একজন পেশাদার প্রতারক ও আদম ব্যবসায়ি, সিলেটে বিভিন্ন প্রতারনা মূলক ব্যবসার সাথে জড়িত, তাঁর বাড়ী সিলেটের জকিগঞ্জে এবং বর্তমানে সিলেটের উপশহরে বসবাস করছেন, এ ব্যাপারে সিলেটর ছাত্রদল নেতা আব্দুর রউফ সাথে আলাপকালে জানান, তৃণমূল ছাত্রদল ফুঁসে উঠেছে তাকে যেখানেই পাওয়া তাকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোর্পদ করা হবে। সুত্র:- বাংলা স্টেটমেন্ট

(Visited 10 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here