মসজিদ ও রাস্তা নিয়ে সংঘর্ষে নিহত ১ : আহত ২১

0
147

সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার রহিমপুর ইউপি’র রামচন্দ্রপুর গ্রামে মসজিদ কমিটিতে গ্রুপিং ও মালামাল পরিবহনে রাস্তা ব্যবহারকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ১ জন নিহত ও অন্তত ২১ জন আহত হয়েছেন।

রোববার (৩০ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৫টায় দু’পক্ষের সংঘর্ষের পর সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাজু আহমেদ (২০) নামের এক যুবকের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় ৭জনকে আটক করেছে থানা পুলিশ।

সূত্র জানায়, গ্রামের মসজিদ কমিটিতে গ্রুপিং ও মালামাল পরিবহনে রাস্তা ব্যবহারকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের দেশীয় অস্ত্র তীর ধনুক, দা, টেটাসহ লাঠিসোটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে দু’পক্ষের অন্তত ২১ জন আহত হয়।

বিষয়টি উভয়পক্ষের আত্মীয়-স্বজনদের মধ্যে জানাজানি হলে উভয়পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বিকেল সাড়ে ৫টায় সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। সংঘর্ষে আহতরা হলেন-রহমত আলীর পক্ষের আব্দুল মিয়া (৪০), মছকন আলী (৩০), হোসেন আলী (২৬), মন্তাজ মিয়া, সোহাগ আলী (২৫), রুবি বেগম (২৮), জয়নব বিবি (৫০), দিলারা বেগম (৪৫), ফাতেমা বেগম (৪০), সাফিয়া বেগম (৩২), নুরুন বেগম (৪০) এবং প্রতিপক্ষের সাজিদ আলী গ্রুপের সাহেদ (৩২), শাহাজান (৩০), জালাল (৩২), আশরাফ (৩০), আব্দুর রহিম (৭৫), কৈয়ত ভানু (৫০), সুমিনা বেগম (২৭), কুলসুম বিবি (৩০), তৈয়দ মিয়া (৩৭), আব্দুল হেকিম (৬০) ও সাজু মিয়া (২০)।

সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। পরে পুলিশ ও গ্রামবাসীর সহযোগিতায় আহতদের দ্রুত কমলগঞ্জ ও মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর মধ্যে ৬জনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাদের সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রাত সোয়া ১১টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় আব্দুল হাকিমের ছেলে সাজু আহমেদ নামের এক যুবক মারা যায়।

এ ঘটনায় রামচন্দ্রপুর গ্রামে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। সংঘর্ষে সম্পৃক্ত থাকায় ৭জনকে আটক করেছে পুলিশ। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কোনো পক্ষই থানায় অভিযোগ করেনি। স্থানীয় ইউপি সদস্য ওয়াতির আলী জানান, নিহতের পক্ষে ৯জনই হাসপাতালে থাকায় মামলা দেওয়ার মতো কোনো লোক নেই। প্রতিপক্ষের আহতের সংখ্যা কম।

এ ব্যাপারে কমলগঞ্জ থানাঅফিসার ইনচার্জ (ওসি) বদরুল হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, উভয়পক্ষের ৭জনকে আটক করা হয়েছে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় পুলিশ পাহারায় ২জন রয়েছে। আটকদের মধ্যে ৫জনকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হচ্ছে। তবে অভিযোগ পাওয়া গেলে পরবর্তী আইনানুগ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

(Visited 5 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here