স্বামীর নির্যাতন সইতে না পেরে কলেজছাত্রীর আত্মহত্যা

0
140

সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: ব্রাহ্মনবাড়িয়ার সরাইলে স্বামী ও তার পরিবারের নির্যাতনের শিকার হয়ে আত্মহত্যা করেছেন জয়শ্রী রায় তিথি (২৩) নামের এক কলেজ ছাত্রী। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টায় সরাইল উপজেলার অরুয়াইলে বাবার বাড়িতে গলায় ফাঁস লাগিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন।

জানা গেছে, স্বামী, শাশুড়ি ও ভাশুড়ের নিয়মিত যৌতুকের দাবিতে নির্যাতিত হয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নেয় এক সন্তানের জননী কলেজছাত্রী তিথি।

নিহতের ছোটবোন দীপশ্রী রায় তনু অভিযোগ করে বলেন, ‘২০১৪ সালের অক্টোবরে জয়শ্রী রায় তিথির পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় ব্রাহ্মনবাড়িয়া শহরের মৃত তুলশী রায়ের দ্বিতীয় ছেলে রাজেশ রায়ের সঙ্গে।

রাজেশ ঢাকাস্থ পাসর্পোট অফিসের কর্মরত। তিথি মৌলভীবাজার সরকারি কলেজ থেকে ২০১৩ সালে এইচএসসি পাশ করে ও বিয়ের পর ব্রাহ্মনবাড়িয়া সরকারি মহিলা কলেজে ভর্তি হয়। বিয়ের পর থেকে তিথির স্বামী রাজেশ, শাশুড়ি বেলা রায় ও ভাশুড় রাকেশ রায় যৌতুকের টাকার দাবিতে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করে। এরই এক পর্যায় গত ২২ জুলাই (শনিবার) তিথি ও তার একমাত্র পুত্র সন্তান রুংশিতকে (২) আমাদের বাড়ি অরুয়াইলে পাঠিয়ে দেয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ‘পারিবারিকভাবে বিয়ে হয়েছিলো। কিন্তু যৌতুকের দাবিতে নিয়মিত অত্যাচারিত হয়ে মেয়েটি বাবার বাড়িতে মঙ্গলবার দুপুরে আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়। বিষয়টি নিয়ে সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে মেয়েটি আত্মহত্যা করেছে বলে মনে হয়েছে। এখন কেউ যদি অভিযোগ করেন তাহলে আমরা অবশ্য মামলা হিসেবে ফাইল তৈরি করবো।

কিন্তু আমাদের কাছে মেয়েটির লিগ্যাল অভিভাবকরা তেমন কিছু জানান নি। এজন্য আমরা লাশ ‘নো অবজেকশন’র আলোকে পরিবারকে হস্তান্তর করি। শবদেহের সময় পুলিশ, মৃতের স্বামী ও স্বজনরা উপস্থিত ছিলেন। এখন মামলা করতে চাইলে নিবেন কি না বা আপনাদের ওপর চাপ আছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে ওসি বলেন, ‘কেন নয়, অবশ্যই নিবো। লিগ্যাল কেউ আসলেই হবে।

তাছাড়া আমাদের ওপর কোনো চাপও নেই। এদিকে মৃতের মায়ের অভিযোগ ‘তারা মামলা করতে চাইলেও প্রভাবশালী স্বামীর বাড়ির লোকজন ও তিথির জেঠা বেনীমাধব রায়, ঘটক স্বরজিৎ রায় তিথির বাবাকে ভয়ভীতি প্রদর্শন করায় তারা মামলা করেননি। তিথির মায়ের অভিযোগটি ওসিকে জানালে তিনি বলেন, ‘আমার কাছে এমন কোনো সংবাদ আসেনি।

যদি অভিযোগকারী পরিবারের এমন কোনো সন্দেহ বা অভিযোগ থাকে তাহলে তারা অবশ্যই থানায় জানাতে পারে। তারা জানালেই থানা উদ্যোগী হবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে। এদিকে বুধবার সকালের জয়শ্রী রায় তিথির আত্মহত্যায় প্ররোচিত করার দায়ে স্বামী রাজেশ রায়ের বিচার দাবিতে মানববন্ধন করেছে মৌলভীবাজার সরকারি কলেজেরে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। তারা যৌতুকলোভী রাজেশের পরিবারেরও বিচার চেয়েছে প্রশাসনের কাছে। তিথির পরিবারের অভিযোগ প্রসঙ্গে স্বামী রাজেশ রায় মুঠোফোনে কিছু বলতে অপারগতা প্রকাশ করে কল কেটে দেন।

(Visited 6 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here