পাহাড়ি ঢলে বন্যা : পানিবন্দি সিলেটের চার উপজেলার অর্ধ লক্ষাধিক মানুষ

0
290

সিলেটের সংবাদ ডটকম: উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল আর টানা বর্ষণে সিলেটের চার উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়ননের অর্ধলক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। এসব এলাকার রাস্তা-ঘাট পানিতে তলিয়ে গিয়ে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ব্যহত হচ্ছে।

এদিকে, সুরমা-কুশিয়ারা নদীর তিনটি পয়েন্টে পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে পাওয়া তথ্য মতে, শনিবার বিকেল তিনটায় কানাইঘাটে সুরমা নদী বিপদসীমার ১১৬ সেন্টিমিটার, সিলেটে সুরমা নদী বিপদসীমার ১৬ সেন্টিমিটার এবং শেওলায় কুশিয়ারা নদী বিপদসীমার ২৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

এদিকে, পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন বলে জানিয়েছেন জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্ত মো: মোফজেলুর রহমান মজুমদার। বন্যা কবলিত চার উপজেলা হচ্ছে- কোম্পানীগঞ্জ, গোয়াইনঘাট, জৈন্তাপুর ও কানাইঘাট। বন্যার কারণে দেশের সর্ববৃহৎ পাথর কোয়ারী ভোলাগঞ্জ, বিছনাকান্দি, জাফলং ও লোভাছড়া পাথর কোয়ারীতে বন্ধ রয়েছে পাথর উত্তোলন কার্যক্রম।

ফলে বেকার হয়ে পড়েছেন এর সাথে জড়িত কয়েক হাজার শ্রমিক। পাহাড়ি ঢলের কারণে সীমান্ত নদী পিয়াইন ও সারি নদীর পানি উপচে গোয়াইনঘাট উপজেলার বেশির ভাগ নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। পানিতে সালুটিকর-গোয়াইনঘাট এবং সারি-গোয়াইনঘাট সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। এ কারণে সিলেট জেলা সদরের সাথে সরাসরি সড়ক যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।

পানি উঠে যাওয়ায় শনিবার বেশ কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাঠদান বন্ধ ছিল। এছাড়া সারি, বড়গাং নদীর পানি বেড়ে যাওয়ায় জৈন্তাপুরের নিচু গ্রামগুলোরও পানিতে তলিয়ে গেছে। তাছাড়া নদীগুলোর পানি বেড়ে যাওয়ায় হাওরাঞ্চলে বন্যার সৃষ্টি হয়েছে। উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চলের বিশটি গ্রাম পানিতে প্লাবিত হয়েছে।

গ্রামীণ রাস্তা-ঘাট পানিতে তলিয়ে গেছে। কানাইঘাটে বন্যা পরিস্থিতিরও অবনতি হয়েছে। সুরমা নদীর পানি কানাইঘাট পয়েন্টে বিপদ সীমার ১১৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। উপজেলার লোভা পাথর কোয়ারীতে পাথর উত্তোলন বন্ধ রয়েছে। তাছাড়া বড়চতুল, লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব ও পশ্চিম, রাজাগঞ্জ ইউনিয়নের শতাধিক গ্রাম বন্যাকবলিত হওয়ায় পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন নিচু এলাকার বাসিন্দারা।

কোম্পানীগঞ্জের উপজেলা সদর সংলগ্ন একটি রাস্তা ও কাঁঠালবাড়ি রাস্তা জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। সিলেট আবহাওয়া অফিস জানান, গতকাল শনিবার সকাল ৬টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত সিলেটে ১১৭ মিলি মিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

(Visited 10 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here