‘চুরি তো চুরি, তার উপর সিনাজুরি’

0
278

সিলেটের সংবাদ ডটকম: ‘চুরি তো চুরি, তার উপর সিনাজুরি’ এমন প্রবাদ বাক্যটি যুগ যুগ ধরে শুনে আসছেন অনেকে। আজ তার প্রমান দিলেন বহুল আলোচিত-সমালোচিত সিলেট মহানগর যুবলীগের আহবায়ক আলম খান মুক্তি।

অবৈধভাবে হাট বসানো এবং সেই হাটে গরু আটকিয়ে জোর করে নেয়ার অপরাধে পুলিশ ভেঙ্গে দিয়েছে মুক্তির তথাকথিত ”বন্যার্থদের সহযোগীতায় বিরাট গরু ছাগলের হাট”। শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টায় নগরীর আম্বরখানার আবাসন সিটি মাঠে এ অভিযান চালায় বিমানবন্দর থানা পুলিশ।

মুক্তির অবৈধ হাটে জোরপূর্বক গাড়ি আটকে গরু ছিনতাইয়ের খবরে উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ। অবৈধ হাট উচ্ছেদের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন বিমানবন্দর থানার সহকারি পুলিশ কমিশনার মুনাদির ইসলাম চৌধুরী। স্হানীয় সুত্রে জানা যায়, গরুর গাড়ি ছিনতাইয়ের শিকার মালিকের অভিযোগের প্রেক্ষিতে এসএমপি কমিশনার গোলাম কিবরিয়ার নির্দেশে এ অভিযান চালানো হয় বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত উপ কমিশনার জেদান আল মুসা।

সুত্র জানায়, গরুর মালিক জাকির মিয়া সুনামগঞ্জ থেকে একটি ট্রাকযোগে ৬টি গরু সিলেটের কানাইঘাটে নিয়ে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে আলম খান মুক্তির নেতৃত্বে জাকির মিয়ার গরু আটক করে তা হাটে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে জাকির মিয়া এসএমপি কমিশনারের মোবাইল নাম্বারে ফোন করে অভিযোগ করেন। পুলিশ অভিযান চালিয়ে গরুগুলো উদ্ধার করে তার জিম্মায় দেয়।

সূত্র জানায়, সিলেট মহানগর যুবলীগের আহবায়ক আলম খান মুক্তি ”বন্যার্থদের সহযোগীতায় বিরাট গরু ছাগলের হাট” নাম দিয়ে এই অবৈধ হাট বসিয়েছেন। তার উদ্দেশ্য ”বন্যার্থদের সহযোগীতাটি ব্যবহার করলে হয়তো সবাই তাকে অন্য দৃষ্টিতে দেখবে। আম্বরখানার আবাসন সিটি মাঠে এ অভিযান চলাকালে সিলেট মহানগর যুবলীগের কয়েকজন কর্মী উচ্ছেদের সময় পুলিশকে বাঁধা দেয়।

এসময় কর্তব্যরত সাংবাদিকদের সিলেট মহানগর যুবলীগের আহবায়ক আলম খান মুক্তির দর্শণ দেউরী গ্রুপের কর্মীরা উচ্ছেদের ছবি তুলতেও বাঁধা দেয়। এবিষয়ে সিলেট মহানগর যুবলীগের আহবায়ক আলম খান মুক্তির মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করলেও তিনি কল রিসিভ করেননি। বিমানবন্দর থানার সহকারি পুলিশ কমিশনার মুনাদির ইসলাম চৌধুরী জানান, আম্বরখানাস্থ আবাস হাউজিংয়ের ভেতর অবৈধভাবে কোরবানির পশুর হাট বসানো হয়েছিল।

ওই হাউজিংয়ের একজন অংশীদার মাহবুবুল হক হাট বসানোর বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগও করেন। অভিযোগ পেয়ে রাতে অভিযান চালিয়ে কোরবানির পশুর অবৈধ হাটটি উচ্ছেদ করা হয়। সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার জেদান আল মুসা বলেন, ‘গরুর গাড়ি ছিনতাইয়ের খবর পেয়ে কমিশনার মহোদয়ের নির্দেশে অবৈধ পশুর হাট উচ্ছেদে অভিযান চালানো হয়। এ সময় ছিনতাই হওয়া ৬টি গরু উদ্ধার করে পুলিশ এসকর্ট দিয়ে মালিকের জিম্মায় দেওয়া হয়েছে। তিনি আরো বলেন, নগরীর কোনো রাস্তায় অবৈধ পশুর হাট বসতে দেওয়া হবে না।

(Visited 13 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here