ভয়াবহ বিপর্যয়ে দিন কাটাচ্ছেন হাওরপাড়ের মানুষ

0
243

খালেদ মিয়া, (মৌলভীবাজার): কাউয়াদিঘী হাওর ও কুশিয়ারী নদীর পানিতে সৃষ্ট বন্যায় দুর্ভোগে পড়েছেন মৌলভীবাজার জেলার সদর উপজেলা ও রাজনগর উপজেলার  লক্ষাধিক মানুষ।

গত ৪ মাস দরে দুই উপজেলার হাওর পারের মানুষ বন্যার কারণে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। কাউয়াদীঘি হাওরের বন্যায় রাজনগর উপজেলার ফতেহপুর ও পাঁচগাঁও ইউনিয়নের প্রায় পুরোটা এবং মুন্সীবাজার, মনসুরনগর, রাজনগর সদর ও উত্তরভাগ ইউনিয়নের আংশিক প্লাাবিত হয়েছে।

মৌলভীবাজার সদর উপজেলার  একাটুনা ইউনিয়নের ও আখাইলকুরা ইউনিয়নের কাউয়াদীঘি হাওর সংলগ্ন বিস্তীর্ণ এলাকাও প্লাবিত হয়েছে।বানভাসি মানুষের নৌকার অভাব, পানিবাহিত রোগের প্রকোপ বেড়ে যাওয়া, বিশুদ্ধ খাবার পানির অভাব ও বন্যায় শ্রমজীবী মানুষের কাজ বন্ধ থাকায় বন্যাদুর্গত মানুষের দুর্দশা ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে।

দীর্ঘ ৩-৪ মাস থেকে নেই কোন আয়-রোজগার। মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী বিজয় ইন্দ্র শংকর চক্রবর্তী জানান, কুশিয়ারার পানি মৌলভীবাজারের শেরপুরে বিপদসীমার ৭ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, ‘কাউয়াদিঘি হাওরের পানি কুশিয়ারা নদী দিয়ে নেমে যায়। তবে কুশিয়ারার পানি কাশিমপুর অংশে পানি যাচ্ছে ধীরগতিতে। তাই কাউয়াদিঘি হাওর থেকে পানি নামতে পারছে না। তারপরও পানি আগের চেয়ে কম আছে। কুশিয়ারার পানি দ্রুতগতিতে নামতে পারলে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি ঘটবে। সবমিলিয়ে আগের তুলনায় পানি অনেক কমেছে’।

(Visited 7 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here