কমলগঞ্জে এক রাতে তিন বাড়ি থেকে ৮ গরু চুরি : আটক ১

0
315

সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে গরু চুরির প্রকোপ বৃদ্ধি হয়েছে। উপজেলার পতনঊষার ইউনিয়নের তিনটি বাড়ি থেকে একই রাতে ৮টি গরু চুরির ঘটনা ঘটেছে।

এছাড়া বিভিন্ন স্থানে জুয়ার আসর, ইয়াবা সেবন ও বিক্রির অভিযোগ পাওয়া গেছে। গভীর রাতে অপরিচিত লোকের আনাগোনা বৃদ্ধি পাওয়ায় আতংকিত হয়ে পড়ছেন ব্যবসায়ীসহ সাধারণ মানুষ।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে পতনঊষার গ্রামের ওয়াব মিয়ার ৩টি, শ্রীরামপুর গ্রামের আব্দুস ছত্তার এর ২টি ও তরাজ মিয়ার ৩টি গরু চুরি হয়। বাড়ির গৃহস্থরা জানান, ৮টি গরু চুরির ফলে তাদের প্রায় ৫ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া কিছুদিন পূর্বে পতনঊষার গ্রামের শমশের খাঁনের বাড়ি থেকে ৪টি গরু ও সুরুজ মিয়ার বাড়ি থেকে আরো ৩টি গরু চুরি সংঘটিত হয়েছে।

পুলিশ শুক্রবার রাতে মিটু মিয়া (৩৮) নামে সন্দেহভাজন একজনেেক আটক করেছে। সে শহীদ নগর বাজারের প্রাক্তন পাহারাদার ছিল। এলাকাবাসীরা অভিযোগ করে বলেন, প্রায় প্রতিরাতেই শ্রীরামপুর-চাতলাপুর এলাকার একটি আস্তানায় জুয়ার আসর বসে। এখানে বহিরাগত ছাড়াও স্থানীয় অনেকেই জুয়া খেলায় জড়িত রয়েছেন।

যদিও মাঝে মধ্যে পুলিশী অভিযান হয়। এলাকাবাসীর ধারণা এই জুয়ার আসরের কারণেই এলাকায় গরু চুরিসহ আইন শৃংখলার অবনতি ঘটছে। পতনঊষার কমিউনিটি পুলিশিং কমিটির সভাপতি হাজী সুরুজ আলী ও শহীদ নগর বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মাসুক মিয়া জানান, গরু চুরি বৃদ্ধি পাওয়ায় আমরা চরম উদ্বিগ্ন।

কৃষকদের অন্যতম সম্বল গরু চুরি হওয়ায় এখন তারা দিশেহারা হয়ে পড়ছে। তারা অভিযোগ করে বলেন, পতনঊষার রোড ব্যবহার করে প্রায়ই ভারতীয় ইয়াবা, গাঁজা হেরোইন পাচার হচ্ছে। এলাকায় বিক্রিও হচ্ছে। স্থানীয় কিছু যুবসমাজও এতে আসক্ত হয়ে পড়ছে। এছাড়া জুয়ার আসর বসার কারণে এলাকায় চুরি বাড়ছে।

প্রায় রাতেই বাজারে অপরিচিত লোকের আনাগোনা লক্ষ্য করা গেছে। জিজ্ঞাসা করলে তারা কখনো ডিবি পুলিশ বা র‌্যাবের সোর্স বলে দাবী করে। হাওর নদী রক্ষা আঞ্চলিক কমিটির যুগ্ম আহবায়ক নুরুল মোহাইমীন জানান, কমলগঞ্জের নিম্নাঞ্চল হিসাবে পরিচিত পতনউষার ইউনিয়নের কৃষকরা গত বোরো, আউশ, আমন ও সবজি চাষাবাদে মারাত্মক পরিমাণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। বর্তমানে চালের উচ্চ মূল্যে নিম্নবিত্ত পরিবার সমুহের নুন আনতে পান্তা ফুরাচ্ছে।

কয়েকদিন আগে শ্রীসূর্য্য এলাকা থেকে একটি সিএনজি-অটোরিক্সা চুরি হয়। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে পতনউষার ও শ্রীরামপুর এলাকার তিন পরিবারের একসঙ্গে ৮টি গরু চুরির ঘটনা ঘটেছে। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে মারার উপর খাড়ার ঘাঁ।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে পতনঊষার ইউপি চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার তওফিক আহমদ বাবু পতনঊষার ইউনিয়নে গরু চুরি বৃদ্ধির সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ বিষয়ে উপজেলা আইন শৃংখলা কমিটির সভায় কয়েক বার অবগত করা হয়েছে। ইতিমধ্যে এক চোরকে পুলিশ আটক করেছে। এখানে জুয়ার আসর বন্ধ না করলে অপরাধমূলক কর্মকান্ড বন্ধ হবে না।

শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক আবু ছায়েম মো: আব্দুর রহমান একই রাতে পতনঊষার ইউনিয়নে ৮টি গরু চুরির সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ঘটনায় জড়িত সন্তেহে শুক্রবার রাতে মিটু মিয়া নামে একজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

গরু চুরি রোধে পুলিশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে। কমলগঞ্জ থানার ওসি বদরুল হাসান বলেন, গরুচুরিসহ সকল অপরাধমূলক কর্মকান্ড প্রতিরোধে পুলিশ সক্রিয়ভাবে কাজ করছে। গভীর রাতে সন্দেহভাজন লোকের আনাগোনা থাকলে পুলিশ অভিযোগ পেলেই ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। এজন্য এলাকার সচেতন লোকদের সহায়তা প্রয়োজন।

(Visited 6 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here