কুলাউড়ায় ঘুমন্ত স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা: ঘাতক স্বামী আটক

0
227

সিলেটের সংবাদ ডটকম: মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় শ্বশুরালয়ে ঘুমন্ত স্ত্রীর গলা কেটে হত্যা করেছে পাষণ্ড স্বামী।

এ সময় ঘাতককে বাঁধা দিতে গেলে শ্বাশুড়ি ও শালিকাকে এলোপাথাড়িভাবে কুপিয়েছে পাষণ্ড।

গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করেছে স্থানীয়রা। সোমবার রাত সাড়ে ৮টার উপজেলার ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের আদমপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীরা জানান- উপজেলার আদমপুর গ্রামের তাহির মিয়ার মেয়ে নাসিমা বেগম (৩০) নিজ বাপের বাড়িতে ঘরে ঘুমাচ্ছিলেন। এ সময় ঘাতক স্বামী একই ইউনিয়নের লোহাতুলি গ্রামের তাজুল মিয়ার ছেলে রফিক মিয়া শ্বশুড় বাড়িতে ঘুমন্ত স্ত্রীর গলা কেটে খুন করে। তাকে বাধা দিতে গেলে শ্বাশুড়ি ও শালিকা মলি বেগমকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে পালিয়ে যায় ঘাতক।

পরে স্থানীরা আহতদের উদ্ধার করে কুলাউড়া উপজেলা হাসপাতালে প্রেরণ করে। আহতদের অবস্থা গুরুতর হওয়া হাসপাতালের চিকৎসকরা তাদের সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। কুলাউড়ায় স্ত্রী জবাইকারী রফিক মিয়া রাতেই গ্রেফতার।

স্থানীয় জনতার সহযোগিতায় ইন্সপেক্টর তদন্ত বিনয় ভূষণ রায় নৌকা নিয়ে রাত ১:৪৫ ব্রাহ্মণবাজারের পাশের বিল থেকে তাকে আটক করা হয়। এসময় তার কাছ থেকে ছোরা উদ্ধার। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো অাবু ইউসুফ ও ওসি শামীম মুসার সহযোগিতায় গ্রেপ্তারী অপারেশন সফল হয়েছে।

পাষন্ড স্বামীর স্ত্রী (৪ সন্তানের মা) পরকিয়ার সন্ধেহে এই ঘটনা। মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় শ্বশুর বাড়িতে এসে ঘরে দা দিয়ে স্ত্রী নাসিমা বেগম(৩০)কে গলা কেটে হত্যা করেছে পাষন্ড স্বামী রফিক মিয়া (৩৫)।

প্রতিহত করতে আসলে শ্যালিকা ৭ম শ্রেণির ছাত্রী সোনিয়া আক্তার মনির পেটে কোপ দিয়ে ভুড়ি বের করে এবং শ্বাশুরি সোনাজান বেগমের পায়ে কোপ দেয়। ঘটনাটি ঘটেছে ২৩/১০/১৭ তারিখ রাত আটটার দিকে কুলাড়া থানার ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের আদমপুর গ্রামে।

(Visited 2 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here