এমপি কেয়া চৌধুরীর উপর হামলা : তারা মিয়া ও সাহেদ ঢাকায় গ্রেফতার

0
121

সিলেটের সংবাদ ডটকম: গত ১০ নভেম্বর বাহুবলের বেদে পল্লীতে অনুদানের চেক বিতরণকালে এমপি কেয়া চৌধুরীর উপর হামলার ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার আসামী বাহুবল উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান তারা মিয়া ও জেলা পরিষদের সদস্য আলাউর রহমান সাহেদকে গ্রেফতার করেছে ডিবি পুলিশ।

গতকাল মঙ্গলবার (৫ ডিসেম্বর) রাত ১০টায় ঢাকার কদমতলী এলাকার একটি বাসা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, তারা মিয়া ও সাহেদকে গ্রেফতারের জন্য হবিগঞ্জ ডিবি পুলিশের ওসি মোঃ শাহ আলম, ইন্সপেক্টর আহসান হাবীব ও এসআই ইকবাল বাহারের নেতৃত্বে ডিবি পুলিশের একটি টিম ৩ দিন পূর্বে রাজধানী ঢাকায় অবস্থায় নেয়।

এরপর এই টিমটি ঢাকার বিভিন্ন স্থানে তাদেরকে গ্রেফতারের জন্য প্রচেষ্টা চালায়। গতকাল সন্ধ্যায় পুলিশ নিশ্চিত হয় তারা মিয়া ও আলাউর রহমান সাহেদ কদমতলী এলাকার একটি বাসায় অবস্থান করছেন।

এই তথ্য নিশ্চিত হওয়ার পর ওই বাসায় অভিযান চালিয়ে তারা মিয়া ও আলাউর রহমান সাহেদকে গ্রেফতার করা হয়।  জানা যায়, হাইকোর্ট থেকে আগাম জামিন লাভ করার জন্য তারা মিয়া ও আলাউর রহমান সাহেদ ঢাকায় অবস্থান করছিলেন।

কিন্তু হাইকোর্টে তিন দফা জামিন আবেদন করে তিনবারই জামিন নামঞ্জুর হয়।  গত ২৭ নভেম্বর হাইকোর্টের ৭নং কোর্টে, ৩ ডিসেম্বর ১৭নং কোর্টে এবং সর্বশেষ গতকাল মঙ্গলবার (০৫ ডিসেম্বর) বিকেলে ১৫নং কোর্টে তারা মিয়া ও সাহেদের পক্ষে জামিন আবেদন করেন সিনিয়র তিন আইনজীবী।

সরকার পক্ষে জামিনের বিরোধীতা করেন এ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও এডিশনাল এ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা। শুনানি শেষে বিজ্ঞ বিচারপতি আসাদুজ্জামান ও বিচারপতি রাজিক আল জলিল তাদের জামিন নামঞ্জুর করেন।  ৩য় বারের মতো জামিন নামঞ্জুর হওয়ায় তারা মিয়া ও সাহেদ বিফল মনোরথে হাইকোর্ট থেকে ঢাকার কদমতলীর বাসায় ফিরেন।

গোপন সূত্রে এ খবর পেয়ে যায় ঢাকায় অবস্থানরত হবিগঞ্জ ডিবি পুলিশ। পুলিশের একটি সূত্র জানায়, গ্রেফতারকৃত তারা মিয়া ও আলাউর রহমান সাহেদ ঢাকায় অবস্থান নিয়ে হাইকোর্টে আগাম জামিন আবেদন করে জামিন পাননি।

বিষয়টি পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বিবেচনায় নিয়ে ও নারী সংসদ সদস্যের উপর হামলার ঘটনাটিকে গুরুত্ব দিয়ে তারা মিয়া ও আলাউর রহমান সাহেদকে গ্রেফতারের জন্য হবিগঞ্জ ডিবি পুলিশকে নির্দেশ দেয়া হয়।

এ পরিপ্রেক্ষিতে ডিবি পুলিশ ঢাকায় অবস্থান নিয়ে গতকাল রাত ১০টার দিকে তাদের গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।  হবিগঞ্জ ডিবি পুলিশের ওসি মোঃ শাহ আলম জানান, ঢাকায় ৩ দিন অবস্থান নিয়ে এমপি কেয়া চৌধুরীসহ নারী ইউপি সদস্যের উপর হামলা মামলার আসামী বাহুবল উপজেলা পরিষদের নবনির্বাচিত ভাইস চেয়ারম্যান তারা মিয়া ও জেলা পরিষদ সদস্য আলাউর রহমান সাহেদকে গ্রেফতার করা হয়।

রাতেই তাদেরকে নিয়ে হবিগঞ্জের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয় ডিবি পুলিশ। রাত ২টার দিকে তারা হবিগঞ্জ ডিবি অফিসে এসে পৌঁছায়। আজ বুধবার তাদেরকে আদালতে হাজির করা হবে।  প্রসঙ্গত, গত ১০ নভেম্বর বাহুবল উপজেলার মিরপুর বাজারের অদূরে বেদে পল্লীতে সরকারি সহায়তার চেক বিতরণকালে এমপি কেয়া চৌধুরীর উপর হামলার ঘটনা ঘটে।

হামলায় এমপি কেয়া চৌধুরী, নারী ইউপি সদস্য পারভীন আক্তার ও সাবেক নারী ইউপি সদস্য রাহিলা আক্তারসহ কয়েকজন আহত হন। ১৮ নভেম্বর রাতে এ ব্যাপারে মামলা দায়ের করেন লামাতাসী ইউপি’র ১নং (সাধারণ ওয়ার্ড ১, ২ ও ৩) সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নারী সদস্য পারভীন আক্তার। মামলায় তারা মিয়া, আলাউর রহমান সাহেদ ও তারা মিয়ার ম্যানেজার জসিম উদ্দিনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ১৪/১৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হয়। জসিম উদ্দিন আদালতে হাজির হয়ে জামিন চাইলে আদালত তাকে কারাগারে প্রেরণ করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here