দিরাইয়ে স্কুলছাত্রী খুন : ঘাতকের বন্ধু গ্রেপ্তার, মামলা দায়ের

0
306

সিলেটের সংবাদ ডটকম: প্রেম প্রস্তাবে সাড়া না দেওয়ায় বাসায় ঢুকে সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে মুন্নি আক্তার (১৮) নামে দশম শ্রেণীর এক পরীক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাত করে হত্যার ঘটনায় বখাটে এহিয়ার বন্ধুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতের নাম তানভির আহমেদ (২০)। সে উপজেলার তাড়ল ইউনিয়নের তাড়ল গ্রামের মো: আবুল কালামের ছেলে বলে জানা যায়।

সোমবার (১৮ ডিসেম্বর) বিকেল সাড়ে ৪টায় দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: মোস্তফা কামালের নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যরা শহরের কলেজ রোড এলাকার তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এ ঘটনায় নিহত হুমায়রা আক্তার মুন্নির মা রাহেলা আক্তার বাদি হয়ে সোমবার বিকেলে ইয়াহিয়া সরদারকে প্রধান আসামী ও গ্রেফতারকৃত বন্ধু তানভির আহমদকে ২নং আসামী করে দিরাই থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-১০, তারিখ ১৮/১২/১৭ ইং।

উল্লেখ্য, গত শনিবার ১৬ ডিসেম্বর রাত ৮টায় উপজেলার আনোয়ারপুরস্থ মাদানি মহল্লার বাসায় ঢুকে অতর্কিত উপর্যুপুরি আঘাত করে রক্তাক্ত করে পালিয়ে যায় বখাটে ঘাতকরা। আশঙ্কাজনক অবস্থায় মুন্নিকে দিরাই উপজেলা স্বস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকাৎসক তাকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে প্রেরণ করেন।

সিলেট নিয়ে যাওয়ার পথে অধিক রক্তক্ষরনে মুন্নির মৃত্যু হয়। নিহত মুন্নি উপজেলার জগদল ইউনিয়নের নগদীপুর গ্রামের ইটালী প্রবাসী হিফজুর রহমানের মেয়ে। সে দিরাই উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী বলে জানা গেছে।

মেয়েটির পিতা দীর্ঘদিন ধরে প্রবাসে অবস্থান করায় মেয়েরটি লেখাপড়ার কারণে তার মা দিরাই পৌর শহরের আনোয়ারপুর মাদানীয় মহল্লা এলাকায় একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন।

ঘাতকরা হলেন- উপজেলার করিমপুর ইউনিয়নের সাকিতপুর গ্রামের জামাল সরদারের ছেলে ইয়াহিয়া ও গ্রেফতারকৃত তানভির আহমদ তাড়ল ইউনিয়নের তাড়ল গ্রামের আবুল কালামের ছেলে।

দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: মোস্তফা কামাল একজন আসামীকে গ্রেফতারের সত্যতা স্বীকার করে জানান, প্রধান আসামী ইয়াহিয়াকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

(Visited 4 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here