ওসমানী হাসপাতালের আইসিইউ নিয়ে নার্সের স্বজনপ্রীতি : অভিযোগের তীর রেখার দিকে

0
265

সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের অভিযোগের কোনো শেষ নেই।

প্রতিনিয়ত রোগি সাধারাণদের অভিযোগ রয়েছে এই হাসপাতালের বিরুদ্ধে। কখনো বা রোগীদের সাথে ওয়ার্ড বয়দের অসাদাচরণ, নার্সদের বেড বাণিজ্য, ১শ টাকা দিলে এক্সরে রিপোর্ট ৫ মিনিটে পাওয়া যায়, হাসপাতালের বারান্ধায় মাটিতে চলছে চিকিৎসা, ওয়ার্ড গেইট ম্যানদের ঘুষ বাণিজ্য, দালালদের উপক্রম, অপারেশন থীয়েটারের সামনে অপেক্ষামান রোগী, দায়িত্বে অবহেলা আর অনিয়মসহ কত শত অভিযোগ রোগি ও স্বজনদের।

এর ফলে পদে পদে ভোগান্তি আর হয়রানির শিকার হচ্ছেন প্রতিদিন দূর-দূরান্ত থেকে চিকিৎসা সেবা নিতে আসা অসহায় রোগী সাধারণরা। দেখার জেন কেউ নেই। এবার অভিযোগ ওঠেছে- কয়েকজন স্টাফ নার্সদের বিরুদ্ধে। তারা হাসপাতালের আইসিইউ-এর বেড নিয়ে চালিয়ে যাচ্ছেন স্বজনপ্রীতি।

আর বলি হচ্ছেন হাসপাতালে আসা রোগী সাধারণরা। জানা গেছে, মেডিকেলের স্টাফ নার্স কণিকার আত্মীয়তার সম্পর্কের এক রোগি আসার কথা হাসপাতালে। এই রোগির জন্য দরকার আইসিইউতে শয্যা। এ জন্য হাসপাতালের আইসিইউ-এর খালি বেড দেওয়া হচ্ছেনা গুরুতর অন্য রোগিদের।

অভিযোগ উঠেছে- হাসপাতালের আলোচিত সিনিয়র স্টাফ নার্স রেখা বণিকের দিকে। তার ইশারায় গত তিনদিন থেকে আইসিইউতে কোনো রোগি নেয়া হচ্ছে না। অথচ আইসিইউ-এর বেড রয়েছে শূন্য। ফলে আইসিইউতে ভর্তি হতে না পেরে গত তিনদিনে ৪জন রোগী মারা গেছেন বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে জানতে আইসিইউর নার্সিং ইনচার্জ শামীমা নাসরিনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, আমি ছুটিতে ছিলান। ছুটি শেষে মঙ্গলবার (১৯ ডিসেম্বর) এসে একটি সিট খালি দেখি। পরে দায়িত্বে থাকা নার্স জানান, কণিকা দিদি ঢাকা থেকে তার এক আত্মীয়কে নিয়ে আসার কথা। এজন্য সিট খালি রাখা হয়েছে।

হাসপাতালের উপ-পরিচালক দেবোবদ্ধ রায় জানান, ‘সিটটি সম্ভবত বুকিং হয়ে গেছে। তবে গত তিনদিন ধরে সিটটি খালি থাকার বিষয়ে আমার কিছু জানা নেই। হাসপাতালের একাধিক সূত্র জানায়, ওসমানী হাসপাতালে অনেক অনিয়ম, দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনা দেখা যায়, যা রোগি এবং সাধারণ স্টাফদের কিছুই করার থাকে না।

তবে এসব অনিয়ম-দুর্নীতি ও অব্যবস্থাপনার কিছুই জানেন না হাসপাতালের পরিচালক। মূলত; পরিচালককে আড়ালে রেখেই বিভিন্ন স্টাফ তাদের ইচ্ছামতো চালিয়ে যাচ্ছেন হাসপাতালের নিয়ম-কানুন বিরোধী এ সকল কর্মকান্ড। সুত্র:- সুরমা মেইল

(Visited 17 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here