আখালিয়া মোবাইল ফোনে অর্ডার করলেই পাওয়া যাচ্ছে মাদক?

0
392

সিলেটের সংবাদ ডটকম: মাদক বেচাকেনা ও সেবনের ধুম পড়েছে জালালাবাদ থানা জুড়ে।

নগরীর আখালিয়া, কালীবাড়ী, করেরপাড়া, হাওলদারপাড়া পাঠানটুলা চা-বাগান গোয়াবাড়ী এলাকায় খরিদ্দাররা মোবাইল ফোনে যে কোনো ধরনের মাদকের অর্ডার করলেই ডেলিভারি ম্যানের মাধ্যমে মোটরসাইকেল বা বাইসাইকেল যোগে দ্রুত পৌঁছে দেয়া হচ্ছে তাদের ঠিকানায়। জানা গেছে, বিভিন্ন ধরনের নেশা সামগ্রীর বেচাকেনায় এখন কালীবাড়ীতে ধুম।

শুধু তাই নয় মাদক সেবনকারীকে ঝুঁকি নিয়ে আনতে হবে না মদ, গাঁজা, ফেনসিডিল, ইয়াবাসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য। মাদক ব্যবসায়ীরা এবার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে চালিয়ে যাচ্ছে মাদক বেচাকেনা।

ফোন করে মাদকের অর্ডার আর বিকাশের মাধ্যমে মূল্য পরিশোধ এমনই কায়দায় চলছে মাদকের রমরমা ব্যবসা। তবে এ ব্যাপারে ব্যবসায়ীরা নিজেদের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে সতর্কতা অবলম্বন করছেন। এক্ষেত্রে মাদকসেবীদের পূরণ করতে হবে কিছু শর্তও।

নাম না প্রকাশের শর্তে কালীবাড়ী এলাকার এক মাদক ব্যবসায়ী জানান, যে কেউ ফোন করে চাইলেই মিলবে না মাদকদ্রব্য। মাদক পেতে হলে ওই ব্যবসায়ীর পরিচিত ও নিয়মিত একজন খরিদ্দারের সুপারিশ লাগবে তার পরই মিলবে চাহিদা মতো গাঁজা, ফেনসিডিল, ইয়াবাসহ যে কোনো মাদকদ্রব্য।

এরপর ব্যবসায়ীদের নিয়োগ দেয়া (মোটরসাইকেল চালক) ডেলিভারি ম্যান নিরাপদ ঠিকানায় পৌঁছে দিবে মুহূর্তের মধ্যে। তবে এ ধরনের সুযোগের জন্য অর্ডারকারীকে জায়গা ভেদে গুনতে হয় একটু বাড়তি টাকা। এলাকাবাসী সূত্রে পরিচিত মাদক ব্যবসায়ী ও সেবনকারীদের সন্ধ্যার পর থেকে আনাগোনা বৃদ্ধি পায়।

এলাকাবাসীর অভিযোগ মাদক ব্যবসা ও সেবনের মাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই দ্রুত প্রশাসনের তৎপরতা প্রয়োজন। অভিযোগে আরও জানান চিহ্নিত, মাদক ব্যবসায়ীরা মাঝে মধ্যে পাকড়াও হলে আইনের ফাঁক দিয়ে জেল থেকে বেরিয়ে এসে পূনরায় শুরু করে তাদের মাদক ব্যবসা।

আমাদের স্কুল কলেজ পড়ুয়া ছাত্রদের কে মাদক‘র হাতে থেকে রক্ষা করতে হবে। এ বিষয়ে জালালাবাদ থানার ওসি শফিকুল ইসলাম জানান, মাদক ব্যবসায়ী, সেবনকারী ও বিরুদ্ধে অভিযান চলমান রয়েছে।

এদের বিরুদ্ধে অভিযান চলবে, কোনো প্রকার ছাড় দেয়া হবে না এবং এখন থেকে আটকের পর যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে। সময়ের ডাক

(Visited 6 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here