গোলাপগঞ্জে চোরের উপদ্রব বৃদ্ধি : ৭২ ঘন্টার ব্যবধানে ৩ স্থানে চুরি

0
163

সিলেটের সংবাদ ডটকম: গোলাপগঞ্জে চোরের উৎপাত বৃদ্ধি পেয়েছে। ৭২ ঘন্টার ব্যবধানে পৌর এলাকায় তিনটি স্থানে চুরি সংঘটিত হয়েছে।

এ নিয়ে আতংকের মধ্যে পড়েছেন ব্যবাসী সমাজ ও বাসাবাড়ী বসবাসকারী লোকজন। এ ঘটনায় আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবহেলাকে অনেকে দায়ী করেছেন।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন গোলাপগঞ্জ মডেল থানা পুলিশ। জানা যায়, গোলাপগঞ্জ বাজার বণিক সমিতির নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘনিয়ে আসায় ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ ব্যস্ত সময় পার করছেন। অন্যদিকে চোরের উপদ্রব বৃদ্ধি পাওয়ায় তাদের মধ্যে আতংকের সৃষ্টি হয়েছে।

তিন দিনে তিনটি চুরি মানুষের মধ্যে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবহেলাকে দায়ী করছেন। গতকাল বুধবার গভীর রাতে গোলাপগঞ্জ পৌর এলাকার আহমদ খান রোডে একটি বস্ত্র বিতানে (টপলেডি) চুরের দল হানা দেয়। প্রতিষ্ঠানটির পেছনের দিকে জানালার গ্রীল ভেঙে প্রবেশ করে।

এ ঘটনায় চক্রটি ২০ হাজার টাকা নিয়ে যায়। পরদিন গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে দোকানের কর্মচারী এসে দেখতে পান তাদের ভেতরে সব কিছু ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। এ ঘটনায় গোলাপগঞ্জ মডেল থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এ ব্যাপারে দোকানের মালিক নোমান উদ্দিন জানান, প্রতিদিনের ন্যায় আমার কর্মচারী সুহেল আহমদ দোকান খোলার পর দোকানের পেছনের জানালা ভাঙ্গা দেখে আমাকে অবগত করলে আমি দ্রুত ছুটে এসে ঘটনাটি দেখতে পাই।

এদিকে গত মঙ্গলবার রাতে পৌর সদরের চৌমূহনীতে বনফুল এন্ড কোম্পানীতে চুরির সংঘটিত হয়। চোরচক্র দোকানের পেছনের একটি জানালার গ্রীল কেটে ক্যাশ বাক্স ভেঙ্গে মোবাইল ও নগদ টাকা ৩ হাজার টাকার মালামাল নিয়ে পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে বনফুলের মালিক জানান, প্রতিদিনের মত সোমবার আমার দোকান বন্ধ করে তিনি বাড়ি চলে যান।

মঙ্গলবার সকালে সকালে দোকান খুলে দেখতে পান পিছনের জানালার গ্রীল কাটা। তবে প্রতিদিনের বিক্রিত পণ্যের টাকা সঙ্গে নিয়ে যাওয়ায় চোরচক্র বেশী ক্ষতি সাধিত করতে পারেনি। এ ঘটনায় চোর চক্র দোকানের ক্যাশ বাক্স ভাঙলেও অল্প পরিমাণেন টাকা নিয়ে যায়।

অপরদিকে গত সোমবার রাতে গোলাপগঞ্জ পৌর এলাকায় বসবাসকারী এক ব্যাংক কর্মকর্তার বাসায় চুরির সূত্রপাত হলে চোর সেখানেও খুব বেশী টাকার মালামাল নিতে সক্ষম হয়নি। এ সময় চোর জানালা গ্রীল ভেঙে একটি স্বর্ণের আংটি ও কিছু মূল্যবান জিনিসপত্র নিয়ে যায়।

তবে এ ঘটনায় থানায় কোন অভিযোগ করা হয়নি। খোঁজ নিয়ে জানাযায়, বিগত ২০ দিনের ব্যবধানে পৌর সদরের বাজারের রোকসানা জুয়েলার্স, ফাইজা জুয়েলার্স, মা টেলিকম, এস.টি ফ্যাশনেও চুরির ঘটনা ঘটে।

একের পর এক চুুরির ঘটনায় বাজারের ব্যবসায়ীদের বিরাজ করছে উদ্বেগ-আতংক। এ ব্যপারের মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা একেএম ফজলুল হক শিবলী জানান, চুরি গুলোর বিষয়ে আমি আমাকে অবগত করা হয়েছে। চোরদের ধরতে পুলিশ প্রশাসন তৎপর রয়েছে।

(Visited 7 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here