সুনামগঞ্জে স্থাপিত হতে যাচ্ছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

0
226

সিলেটের সংবাদ ডটকম: অর্থ ওপরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নানের প্রচেষ্ঠায় নতুন একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সরকার।

এটি হবে বিশেষায়িত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। শিক্ষায় পিছিয়ে পড়া হাওরবেষ্টিত উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় সীমান্তে সুনামগঞ্জ জেলায় স্থানীয় প্রাকৃতিক সম্পদ ও জনগোষ্ঠীর চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে আধুনিক বিষয় খোলা হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে আইনের খসড়া তৈরি করে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে জমা দেয়া হয়েছে। বিষয়টি স্বীকার করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের উপ-সচিব (বিশ্ববিদ্যালয়) জিন্নাত রেহানা জানান, ইউজিসি আইনের খসড়া তৈরি করে মন্ত্রণালয়ে জমা দেয়া হয়েছে।

এখন আন্তঃমন্ত্রণালয়ের মতামত নেয়া হবে। আইন মন্ত্রণালয়ের ভেটিং শেষে মন্ত্রিসভার অনুমোদনের জন্য পাঠানো হবে। জাতীয় সংসদে আইন পাস হলে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের কাজ শুরু করা হবে। জানা গেছে, সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের লক্ষ্যে যুগোপযোগী একটি খসড়া আইন প্রণয়ন করে মন্ত্রণালয়ে পাঠাতে ইউজিসিকে গত বছরের ২৯শে নভেম্বর নির্দেশ দেয়া হয়।

ইউজিসির চেয়ারম্যান আইনের খসড়া তৈরি করতে ছয় সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে দেন। কমিটি আইনের খসড়া চলতি বছরের ৬ই ফেব্রুয়ারি মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে। অপর একটি সূত্র জানায়, ২০১৬ সালের ৪ঠা অক্টোবর একনেক সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান তার নিজ জেলা সুনামগঞ্জে একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের দাবি তুলেন।

সভায় উপস্থিত থাকা শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এতে সমর্থন জানান। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনে সম্মতি প্রকাশ করেন। পরে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী একটি বেসরকারি চাহিদাপত্র (ডিও লেটার) দেন শিক্ষামন্ত্রীর কাছে। ডিও লেটারে প্রতিমন্ত্রী উল্লেখ করেন, বর্তমান সরকার দেশের শিক্ষাখাতে অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সারা দেশে নতুন স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনসহ শিক্ষার মানোন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সুনামগঞ্জ জেলা বাংলাদেশের একটি পশ্চাৎপদ এলাকা। শিক্ষায় তুলনামূলকভাবে পিছিয়ে পড়া এই অঞ্চলে উচ্চশিক্ষা গ্রহনে কোনো পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় নেই।

পিছিয়ে থাকা সুনামগঞ্জ জেলার শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষার সুযোগ ও শিক্ষার মান্নোন্নয়নে একটি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন জরুরি। সংশ্লিষ্টরা জানান, সুনামগঞ্জ হাওরবেষ্টিত সীমান্তবর্তী জেলা। এ জেলায় অবস্থিত টাংগুয়ার হাওর বিশ্ব ঐতিহ্যের অন্যতম। এছাড়া চুনাপাথর ও খনিজ এবং কয়লা সম্পদে ভরপুর।

এসব বিষয়ের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে সুনামগঞ্জে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বিশেষায়িত উচ্চশিক্ষার মাধ্যমে দেশে এবং বিদেশে দক্ষ জনসম্পদ গড়ে তুলতে এবং উদ্যোক্তা সৃষ্টি করা যায় সে বিষয়ে গুরুত্ব দেয়া হবে। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে আধুনিক বিভাগ ও বিষয় খোলা হবে।

নতুন এ বিশ্ববিদ্যালয়টি স্থাপিত হলে পিছিয়ে পড়া হাওর ও সীমান্তবর্তী এলাকার শিক্ষার্থীরা উচ্চশিক্ষার সুযোগ পাবেন। তবে বিশ্ববিদ্যালয়টি সুনামগঞ্জের কোথায় স্থাপিত হবে তা এখনও পর্যন্ত নির্ধারণ করা হয়নি। দেশের প্রতিটি জেলায় একটি পাবলিক বা প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ঘোষণা রয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার।

এর ধারাবাহিকতায় পাবলিক-প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন দিচ্ছে সরকার। বর্তমানে দেশে ৪০টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। সুনামগঞ্জে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় অনুমোদন হলে এর সংখ্যা দাঁড়াবে ৪১-এ। তবে এটি ছাড়াও আরো তিনটি বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন তৈরির কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে বলে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

গতমাসে আরো একটি নতুন প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। গত সপ্তাহে আদালতের আদেশে বন্ধ থাকা দি কুমিল্লা ইউনিভার্সিটি খুলে দেয়া হয়েছে। এদিকে সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের উদ্যোগ গ্রহনের সংবাদে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং জগন্নাথপুর-দক্ষিন সুনামগঞ্জ নির্বাচনী আসনের সংসদ সদস্য অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নানের প্রতি অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন সুনামগঞ্জ জেলাবাসী।

(Visited 17 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here