ওসমানীনগরে স্কুল রোডের ভগ্নদশা : দূর্ভোগে শিক্ষার্থীসহ স্থানীয় বাসিন্দারা

0
117

সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: ওসমানীনগরের গোয়ালাবাজারে দীর্ঘদিন ধরে সংস্কারবিহীন থাকা স্কুল রোড নামক সড়কে জন দূর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে।

সড়কটি অসংখ্য খানা খন্দকে পরিণত হয়েছে। গোয়ালাবাজার আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় ও গোয়ালাবাজার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশাপাশি অবস্থান থাকায় দুই শিক্ষা প্রতিষ্টানের প্রায় দুই সহ¯্রাধিক শিক্ষার্থীসহ স্থানীয় বাসিন্দারা এই সড়কে যাতায়াত করে আসছেন।

বৃষ্টির মৌসুমে সড়কের খানা খন্দগুলোতে পানি আর কাদার মিশ্রনে একাকার হয়ে যায়। ফলে দূর্ভোগ কাদা মাড়িয়ে শিক্ষার্থী ও জনসাধারণকে চলাচল করতে হচ্ছে। রাস্তাটি সংস্কারের জন্য বর্তমান ও সাবেক স্থানীয় সংসদ সদস্যদের সুপারিশসহ শিক্ষা প্রতিষ্টানের পক্ষ থেকে একাধিকবার উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলীর কার্যালয়ে আবেদন করলেও এলজিইডি কার্যালয়ের কর্মকর্তারা দায়িত্বহীনতা দেখিয়ে আসছেন।

উপজেলা পরিষদ থেকে স্কুল রোডের রাস্তাটির দুরত্ব অর্ধ কিলোমিটার। কিন্তু এলজিইডি কর্মকর্তারা রাস্তাটির দূরবস্থার বিষয়ে অবগত নন বলে দাবি করছেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সিলেট-ঢাকা মহাসড়ক থেকে গোয়ালাবাজার আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় পর্যন্ত সড়কটির দৈর্ঘ্য মাত্র ০.৩৫ কিলোমিটার।

কিন্তু কয়েক বছর পূর্বে সড়কটিতে পাকাকরণের পর অদ্যবধি কোনো সংস্কার করা হয়নি। দীর্ঘদিন সংস্কার বিহীন থাকা এ সড়কটি বর্তমানে বেহাল দশায় রূপ নিয়েছে। আসন্ন বর্ষা মৌসুম শুরুর পর বৃষ্টিপাতে সড়কটিতে আরো ভয়াবহ অবস্থার সৃষ্টি হবে বলে এ সড়কে যাতায়াতকারী শিক্ষার্থী ও স্থানীয়রা আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন।

গোয়ালা বাজার আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর শিক্ষার্থী হোমাইয়া আহমদ সায়মা, নবম শ্রেণীর শিক্ষার্থী ইরাম রহমানসহ শিক্ষার্থীরা জানান, বৃষ্টির দিনে স্কুল ড্রেস কিংবা পরনের কাপড় ময়লা করে আমাদেরকে স্কুলের আসতে হয়। তাই জরুরী ভিত্তিতে রাস্তাটি সংস্কার করার দাবি জানিয়েছে শিক্ষার্থীরা।

গোয়ালা বাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচলনা কমিটির সাবেক সভাপতি আলাউর রহমান আলা বলেন, উপজেলার মধ্যে স্কুল রোড একটি গুরুত্বপূর্ণ এলাকা। এই এলাকার রাস্তাটির সংস্কার না হওয়ায় এলাকার লোকজনসহ শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। বৃষ্টিপাতের সময় শিশু শিক্ষার্থীরা স্কুলে যাতায়াত করার সময় কাদার মধ্যে পড়ে গিয়ে তাদের বই-খাতা নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

গোয়ালাবাজার আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আবুল লেইছ বলেন, এই ছোট একটি রাস্তা সংস্কারের জন্য বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ একাধিকবার বিগত সাংসদ ও বর্তমান সাংসদের সুপারিশ সম্বলিত আবেদনপত্র বালাগঞ্জ ও ওসমানীনগর উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলীর কার্যালয়ে প্রেরণ করলে কার্যত কোনো পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে না।

ফলে দিন দিনে রাস্তাটির হেলা অবস্থা আরও চরম আকার ধারণ করছে। উপজেলা এলজিইডি প্রকৌশলী মোবারক হোসেন বলেন, স্কুল রোডের রাস্তাটির বিষয়ে আমরা অবগত নই। রাস্তা সংস্কারের বিষয়ে কোনো আবেদনও আমরা পাইনি।সুত্র:- সবুজ সিলেট

(Visited 4 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here