বাবার সঙ্গে আকাশে উড়ে না ফেরার দেশে প্রিয়ন্ময়ী

0
361

সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: বাবার সঙ্গে আকাশে উড়তে চেয়েছিল ফারুক আহমেদ প্রিয়কের তিন বছরের মেয়ে প্রিয়ন্ময়ী। আকাশে উড়ার স্বপ্ন পূরণ হলেও জীবন নিয়ে আর মাটিতে নামা হয়নি ছোট্ট এই শিশুটির।

এদিকে আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন প্রিয়ন্ময়ীর মা এ্যানি প্রিয়ক। সোমবার নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়।

নেপাল সেনাবাহিনীর বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, আরোহীদের ৫০ জন নিহত হয়েছেন। আহতদের হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ফারুকের মা ফিরোজা বেগম বলেন, দুর্ঘটনার পর একমাত্র শিশুকন্যা প্রিয়ন্ময়ীকে ছাড়া পরিবারের সবাইকে টিভিতে দেখতে পেয়েছি।

তারা সবাই ভ্রমণের উদ্দেশে নেপাল যাচ্ছিলেন। প্রিয়কের ভাগ্নে সালাহউদ্দিন জানান, প্রিয়কের মেয়ে প্রিয়ন্ময়ী মারা গেছেন। সে খুব চটপটে ছিল। খুব কথা বলতো। গতকালও খুব খুশি ছিল। আমাকে বলেছে- ভাইয়া, আমি আকাশে উড়ব, বিমানে চড়ব। এই পরিবারটি গাজীপুরের নগরহাওলা গ্রামের।

ওই বিমানে থাকা পরিবারের পাঁচজন হলেন, উপজেলার নগরহাওলা গ্রামের মৃত শরাফত আলীর ছেলে ফারুক আহমেদ প্রিয়ক (৩২), তার স্ত্রী আলমুন নাহার অ্যানি (২৫), তাদের একমাত্র সন্তান প্রিয়ন্ময়ী (৩), নগরহাওলা গ্রামের তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে মেহেদী হাসান মাসুম (৩৩) ও তার স্ত্রী সাঈদা কামরুন্নাহার স্বর্ণা আক্তার (২৫)।

(Visited 15 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here