ওআইসির ঢাকা ঘোষণা নিয়ে পাকিস্তানের অভিযোগ নাকচ করেছে বাংলাদেশ

0
131

সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: ইসলামি সহযোগিতা সংস্থার (ওআইসি) পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের সম্মেলন শেষে প্রচারিত ঢাকা ঘোষণা নিয়ে পাকিস্তানের অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে বাংলাদেশ।

স্বাগতিক বাংলাদেশ এককভাবে ওই ঘোষণা প্রচার করেছে বলে অভিযোগ তুলেছে পাকিস্তান। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সোমবার রাতে এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানিয়েছে।

গত রোববার ঢাকায় ওই সম্মেলন শেষ হয়। তার এক দিন পর পাকিস্তান বলছে, স্বাগতিক বাংলাদেশ অংশগ্রহণকারী দেশগুলোর সঙ্গে আলোচনা কিংবা দর-কষাকষি করে ওআইসি পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের ৪৫তম সম্মেলনের পর ঢাকা ঘোষণা প্রচার করেনি।

পাকিস্তানের ওই অভিযোগের জবাবে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সোমবার এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, ঢাকা ঘোষণার মূল খসড়া ওআইসি সচিবালয় তৈরি করেছিল। পরে কিছু সদস্য দেশ, ওআইসির সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান এবং স্বাগতিক দেশের পরামর্শে অতিরিক্ত অনুচ্ছেদ এতে সংযোজন করা হয়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকে গৃহীত হওয়ার আগে পরামর্শগুলো যুক্ত করা হয়। তবে পাকিস্তান ঘোষণার ১৮ নম্বর অনুচ্ছেদ নিয়ে যে প্রশ্ন তুলেছে, তাতে কোনো পরিবর্তন আনা হয়নি। এর আগে সোমবার দুপুরে ঢাকায় পাকিস্তান হাইকমিশন এক বিজ্ঞপ্তিতে অভিযোগ করে, স্বাগতিক দেশ সম্মেলন শেষ হওয়ার ঠিক আগে ঢাকা ঘোষণা প্রচার করেছে।

এতে শুধু স্বাগতিক দেশের দৃষ্টিভঙ্গির বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। তাই এর দায় স্বাগতিক দেশকে নিতে হবে, কেননা ঘোষণার সারবস্তু নিয়ে সদস্য দেশগুলোর সঙ্গে আলোচনা কিংবা দর-কষাকষি করা হয়নি। ওই ঘোষণা, পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের ফোরাম এবং সম্মেলনের দলিলসহ ওআইসির দীর্ঘদিনের প্রতিষ্ঠিত অবস্থানকে ক্ষুণ্ন করেছে।

ঢাকা ঘোষণা নিয়ে পাকিস্তানের আনা অভিযোগের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেছেন সৌদি আরবে বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রদূত এবং ওআইসিতে বাংলাদেশের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি আবদুল মোমেন চৌধুরী। তিনি বলেন, ওআইসির কর্মপদ্ধতি অনুযায়ী, এ ধরনের কোনো সম্মেলনের বেশ আগে থেকেই ঘোষণার খসড়া সদস্য দেশগুলোতে পাঠিয়ে মতামত নেওয়া হয়।

এরপর ওই মতামতের ওপর আলোচনা করে তা চূড়ান্ত করা হয়। কাজেই স্বাগতিক দেশের একক সিদ্ধান্তে ঘোষণা প্রচারের কোনো সুযোগ নেই। তিনি মনে করেন, ঢাকা ঘোষণার কোনো অনুচ্ছেদ বা বিষয়বস্তু পাকিস্তানের মনঃপূত না হওয়ায় এ বিষয়ে প্রশ্ন তুলেছে।

আবদুল মোমেন চৌধুরী বলেন, ‘পাকিস্তানের প্রশ্ন, সদস্য দেশগুলোর সঙ্গে আলোচনা করা হয়নি। এটি হলে তো অন্য দেশও ঘোষণা নিয়ে প্রশ্ন তুলত। যদি কোনো দেশ প্রশ্ন না তোলে, তাহলে বুঝতে হবে সম্মেলনের ঘোষণা নিয়ে অন্যদের আপত্তি নেই।

(Visited 7 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here