ছাত্রলীগের বৈধ সভাপতি প্রার্থী ৬৬, সম্পাদক ১৬৯ জন

0
232

সিলেটের সংবাদ ডটকম ডেস্ক: বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ২৯ তম জাতীয় সম্মেলনের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে প্রার্থীদের বয়সসীমা। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী প্রার্থীদের বয়স ২৭ থাকলেও কয়েক সম্মেলন ধরে সেটি অঘোষিতভাবেই ২৯ ছিল।

এবারের সম্মেলনে ২৭ কিংবা ২৯ নাকি নির্বাচনের বছরের সামনে রেখে ৩০ হবে সেটি নিয়ে পদপ্রত্যাশীদের মধ্যে এক ধরনের ধোঁয়াশা ছিল। শুক্রবার (১১ মে) প্রধানমন্ত্রী ছাত্রলীগের বয়সসীমা ২৮ হবে বলে ঘোষণা দিলে সেই ধোঁয়াশা কেটে যায়।

ফলে এর বেশি বয়সী প্রার্থীরা বাদ পড়েছেন ছাত্রলীগের নেতৃত্বের দৌঁড়ে। শুক্রবার রাতে সংগঠনের ২৯তম সম্মেলনের জন্য গঠিত নির্বাচন কমিশন এ বাদ পড়াদের তালিকা প্রকাশ করে। পাশাপাশি বৈধ প্রার্থীদের তালিকাও প্রকাশ করা হয়েছে। যার মধ্যে সভাপতি প্রার্থী ৬৬ জন ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী ১৬৯ জন।

এদের মধ্যে অনেকে দুই পদের জন্য আবেদন করেছেন। এতে সাক্ষর করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার আরিফুর রহমান লিমন, নির্বাচন কমিশনার নওশাদ উদ্দিন সুজন ও সাকিব হাসান সুইম। সভাপতি পদে বাদ যাওয়া প্রার্থীরা হলেন-দিদার মো. নিজামুল ইসলাম, গোলাম রাব্বানী, অসীম কুমার বৈদ্য, মোতাহার হোসেন প্রিন্স, রাজিব আহমেদ রাসেল, মাকসুদ রানা মিঠু, সায়েম খান, মেহেদী হাসান রনি, মো. রুহুল আমিন,মো. রেজওয়ানুল হক চৌধুরী, হাবিবুর রহমান সুমন, সৈয়দ আশিক, মো. মোবারক হোসাইন প্রমুখ। সাধারণ সম্পাদক পদে বাদ যাওয়া প্রার্থীরা হলেন- দেলোয়ার হোসেন শাহজাদা, আদিত্য নন্দী,  মো. রুহুল আমীন, মো. রাসেল চৌধুরী প্রমুখ। এদিকে এক নোটিশে বাদ পড়া পদপ্রত্যাশীদের কারো সুনির্দিষ্ট অভিযোগ থাকলে সকাল ১০টার মধ্যে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে মনোনয়ন ফরমের অনুলিপি নিয়ে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

(Visited 22 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here