সিসিক নির্বাচনে চলছে আচরনবিধি লংঘনের মহা উৎসব : নির্লিপ্ত নির্বাক ভুমিকায় ইসি

0
44

সিলেটের সংবাদ ডটকম: সিলেট সিটি কর্পোরেশন নিবাচনকে সামনে রেখে চলছে প্রার্থীদের আচরনবিধি লংঘনের মহাউৎসব। অথচ নির্বাচন কমিশন (ইসি) নির্লিপ্ত ও নির্বাক ভূমিকা পালন করছেন।

মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাইয়ের পর কাউন্সিলর প্রার্থীরা নিজেদের নির্বাচনী এলাকায় প্রচার প্রচারনা শুরু করেছেন। প্রতীক বরাদ্দ না হলেও অনেক প্রার্থী তাঁদের নিজস্ব এলাকায় গন-সংযোগের কাজ শুরু করেছেন।

বিয়ে, আকিকাসহ বিভিন্ন পারিবারিক অনুষ্ঠানগুলোতে দেখা মিলছে প্রার্থীদের। এ ছাড়া কোন মানুষ মারা গেলে সকলের আগে সেই বাড়িতে উপস্থিত হচ্ছেন প্রার্থীরা। প্রার্থীদের নিজ নিজ ফেসবুকে আপলোড করছেন নানা নির্বাচনী ইশতেহার। কেউ কেউ আবার পত্রিকায় দিচ্ছেন বক্তব্য এমনকি নিজেদের ইশতেহারের লিফলেটও বিতরন করছেন।

অথচ নির্বাচন কমিশন কার্যালয় থেকে প্রার্খীদের জানানো হয়েছে নির্বাচনে অংশগ্রহনকারিরা প্রতিক পাওয়ার আগ পর্যন্ত কোন ধরনের প্রচার, লিফলেট, পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ করতে পারবেন না। কিন্তু নির্বাচন কমিশনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে চালিয়ে যাচ্ছেন তাদের প্রচারনা। জানা যায়, দলীয় প্রভাব বিস্তার করে জমে উঠেছে প্রার্থীদের এসব প্রচার প্রচারনা।

তবে মানা হচ্ছেনা সরকারি আচরণ বিধি। এদিকে নির্বাচনী প্রচারনার ব্যাপারে জানতে চাইলে সিলেট জেলা নির্বাচন কমিশন কার্যালয় সুত্রে জানা যায়, নির্বাচনী আচরনবিধি প্রত্যেক প্রার্থীকে জানিয়ে দেয়া হয়েছে, এখন যদি কেউ তা না মানে তাহলে তাদের ব্যাপারে আইনি ব্যবস্হা নেয়া হবে।

কার্যালয় সুত্রে আরো জানা যায়, যারা যারা প্রচারনা শুরু করেছেন তাদের তথ্য নেয়া হবে। উল্লেখ্য, সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা দেয়া প্রার্থীদের ১ জুলাই (শনিবার) থেকে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শুরু হয়। ২ জুলাই (সোমবার) পর্যন্ত চলে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের কাজ।

সিলেটের আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তাদের মধ্য থেকে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত ৯ জন মনোনয়ন বাছাই করেন। মনোনয়নপত্র যাছাই বাছাইয়ের পর ৯ জুলাই পর্যন্ত প্রার্থীতা প্রত্যাহার করা যাবে। ১০ জুলাই প্রতীক বিতরণ করা হবে। এরপরই শুরু হবে মূল প্রচারণা। কিন্তু এর আগেই শুরু হয়ে গেছে প্রার্থীদের প্রচারনা।

(Visited 51 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here